মৃতই আসামী! কবর থেকে পোপের দেহ তুলে এনে বিচার

সিংহাসনে বসে রয়েছে একটি কংকালসার মৃতদেহ। অবশ্য পরনে রাজপোশাক। রাজা নন, তিনি আসলে একজন আসামী। তাঁকে ঘিরেই বসেছে বিচারসভা। মৃতদেহ আবার আসামী! এমনটা হয় নাকি? আজকের দিনে দাঁড়িয়ে এ-কথা ভাবতে আশ্চর্য লাগে। অবশ্য সেই ৮৯৭ সালেও মানুষ চমকে গিয়েছিলেন এমন ঘটনায়। শোনা যায়, সেদিন রোমের বিচারালয় কেঁপে উঠেছিল এমন ঘটনা দেখে। হয়তো কোনো ছোটোখাটো ভূমিকম্প ঘটেছিল। তবে ধর্মপ্রাণ মানুষ মনে করেছিলেন, এমন ঘটনায় দেবতা রুষ্ট হয়েছেন। আজও কিংবদন্তি হয়ে থেকে গিয়েছে পোপ ফরমোসাসের (Pope Formosus) মরণোত্তর বিচার প্রক্রিয়া ক্যাডেভার সনদ (Cadaver Synod)। বিচারের শেষে পোপ ফরমোসাসকে অপরাধী ঘোষণা করেছিলেন তৎকালীন পোপ ষষ্ঠ স্টিফান।

রোমে তখন চলছে মাৎসন্যায় অবস্থা। এক পোপের সঙ্গে পরবর্তী পোপের মত না মেলাই তখন দস্তুর। পোপের সঙ্গে বিশপদের মতেরও মিল হয় না। অবশ্য পোপেদের মেয়াদই বা তখন কতদিন? কেউ হয়তো বছরখানেক থাকছেন। কেউ তিন-চার মাস। আবার কেউ মাত্র কয়েক সপ্তাহেই পোপের পদ থেকে সরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। ঠিক এই সময়েই ৮৯১ সালে ফরমোসাস পোপের পদে বসেন। তিনি অবশ্য ৮৯৬ সালে মৃত্যুর আগে পর্যন্ত সেই পদে থেকে গিয়েছিলেন। আর তার কারণ রোমান সম্রাট আরনলফের সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্ক ছিল। তবে ফরমোসাসের মৃত্যুর কয়েক মাসের মধ্যেই আরনলফও মারা যান। মাঝে কয়েক মাসের জন্য ষষ্ঠ বেনেডিক্ট পোপের পদে ছিলেন। আরনলফের মৃত্যুর পরেই তাঁকে সরিয়ে ষষ্ঠ স্টিফান পোপের পদে আসীন হন।

৮৯৭ সালের জানুয়ারি মাসে শুরু হয় ক্যাভেডার সনদ। আসামী ৭ মাস আগে মৃত পোপ ফরমোসাস। পোপ স্টিফানের অভিযোগ, তিনি বে-আইনিভাবে পোপের পদে বসেছিলেন। অবশ্য এই বিতর্কের শুরু তারও বেশ কয়েক বছর আগে। ফরমোসাস তখনও পোপ হননি। তিনি তখন সামান্য একজন বিশপ। তবে তখন থেকেই ফরমোসাসের রাজনৈতিক বুদ্ধির ওপর অগাধ আস্থা ছিল রোমান সম্রাটের। রোম এবং বাইজানটাইনের বিরোধ মেটাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন ফরমোসাস। বাইজানটাইনের আর্ক বিশপ পদেও তাঁকে বসানোর কথা উঠেছিল। তবে রোমান সম্রাটের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করার জন্যই সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন ফরমোসাস।

তখন পোপ ছিলেন অষ্টম জন। তিনি অভিযোগ করেন, তাঁকে সরিয়ে ফরমোসাস বে-আইনিভাবে পোপ হতে চাইছেন। এমনকি বাইজানটাইনের রাজা থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ, সকলেই পোপের চেয়ে ফরমোসাসের কথাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। এই নিয়ে মামলাও শুরু হয়। তবে ফরমোসাস স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, জনকে সরিয়ে পোপ হওয়ার কোনো পরিকল্পনা তাঁর নেই। তিনি কেবল খ্রিস্টান সমাজের ঐক্য বজায় রাখতে চান। এরপর অষ্টম জনের মৃত্যু হয় ৮৯১ সালে। তখন অবশ্য ফরমোসাসকেই পোপ হিসাবে নির্বাচন করা হয়।

আরও পড়ুন
ব্রিটিশ কলকাতায় নববর্ষ উদযাপন, সমুদ্র পেরিয়ে হাজির ইতালির গায়িকা!

ফরমোসাসের মৃত্যুর পর আবারও সেই পুরনো অভিযোগ উঠে আসে। এবার অবশ্য তাঁকে অপরাধী ঘোষণা করা হয়। কারণ মৃত ব্যক্তির পক্ষে আত্মপক্ষ সমর্থন সম্ভব ছিল না। ফরমোসাসের মৃতদেহের শরীর থেকে রাজপোশাক খুলে ফেলা হয়। ছিন্ন বস্ত্রে তাঁর শরীর ফেলে দিয়ে আসা হয় টাইবার নদীর জলে। রোমের কুখ্যাত অপরাধীদের মৃতদেহ ফেলে দেওয়া হত যে টাইবার নদীর জলে। তবে প্রাক্তন পোপের মৃতদেহ এভাবে টাইবারের জলে ফেলে দেওয়া মেনে নিতে পারেননি রোমের মানুষ। তাছাড়া ফরমোসাস সকলেরই অত্যন্ত প্রিয় ছিলেন। অনেকে বলতে থাকেন, এর পর থেকেই রোমে নানা অশুভ ঘটনা ঘটতে শুরু করে। জনরোষের মুখে পোপের পদ ছাড়তে হয় ষষ্ঠ স্টিফানকে। সেই বছরই পোপ থিয়েডোর ক্যাডেভার সনদকে বে-আইনি ঘোষণা করেন। টাইবার নদী থেকে ফরমোসাসের মৃতদেহ উদ্ধার করে আবার সমাধিস্থ করা হয়। পরে ৯০৪ সালে পোপ সারগিয়াস ক্যাভেডার সনদকে স্বীকৃতি দেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে তার পর থেকে এখনও অবধি সকলেই ক্যাভেডার সনদকে বে-আইনি বলেই মনে করেন। এমনকি পোপ থিয়েডোর আইন প্রণয়ন করে জানান, এর পর থেকে আর কোনো মৃত ব্যক্তিকে আসামী করাও যাবে না। আজও আধুনিক বিচার ব্যবস্থায় সেই নিয়মই মেনে আসা হয়। শুধু পোপ ষষ্ঠ স্টিফানের আক্রোশের কাহিনি কিংবদন্তি হয়ে থেকে গিয়েছে।

আরও পড়ুন
পোকার আক্রমণে ধ্বংস হবে ইতালি, ভাইরাস দিয়েই ঠেকালেন ঘনাদা

তথ্যসূত্রঃ
১. The Cadaver Synod: Putting a Dead Pope on Trial, Amelia Soth, J Store Daily
২. The Cadaver Synod: Strangest Trial in History, Donald E. Wilkes Jr

আরও পড়ুন
ছবির নির্দেশ দিচ্ছেন পোপ, বিরক্ত মিকেলেঞ্জেলো ‘শায়েস্তা’ করলেন হাতুড়ি দিয়ে

Powered by Froala Editor

More From Author See More