বিএসএনএল-এমটিএনএলের ১১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি বিক্রির সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

বেতন খাতে খরচ কমাতে আগেই কর্মীদের বাধ্যতামূলক স্বেচ্ছাবসর দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থা বিএসএনএল (BSNL)। পাশাপাশি জানিয়েছিল সংস্থার পুনরুজ্জীবন প্রকল্পে সরকারি বন্ড, উদ্বৃত্ত জমি এবং অন্যান্য নানা সম্পত্তি বিক্রি করার পরিকল্পনাও। এবার সেই প্রকল্পেরই বাস্তবায়ন শুরু করল কেন্দ্র সরকার। গতকালই সবমিলিয়ে ১১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি ও বন্ড বিক্রির সিদ্ধান্তের কথা জানাল রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটি। ডিপার্টমেন্ট অফ ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড পাবলিক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের ওয়েবসাইটে আপলোড করা হল সরকারি নথিও।

হায়দ্রাবাদ, চণ্ডীগড়, ভাবনগর ও কলকাতা— বিএসএনএলের এই চারটি মূল কেন্দ্র থেকেই রিজার্ভ মূল্যে বিক্রি হতে চলেছে প্রায় ৮০০ কোটি টাকার সম্পত্তি। তাছাড়াও মুম্বাইয়ের ভাসারি হিল ও গোরেগাঁও-এ অবস্থিত এমটিএনএলের দপ্তরের আরও ২৭০ কোটি টাকার বন্ড ও সম্পত্তি বিক্রির খাতায় তালিকাভুক্ত করেছে কেন্দ্র।

তবে শুধু বন্ড বা উদ্বাস্তু জমিই নয়, সেইসঙ্গে বিক্রি করা হচ্ছে কোম্পানির একাধিক ফ্ল্যাটও। ওশিয়াড়ায় অবস্থিত এমটিএনএলের ২০টি ফ্ল্যাটকেও নথিভুক্ত করা হয়েছে এই তালিকায়। যেগুলির প্রতিটির মূল্য প্রায় ৫০ লক্ষ থেকে দেড় কোটিরও বেশি। সব মিলিয়ে অঙ্কটা যে বেশ বড়োসড়ো মাত্রায় পৌঁছাচ্ছে তাতে সন্দেহ নেই কোনো। আগামী ১৪ ডিসেম্বরই বসতে চলেছে সরকারি নিলামের আসর।

২০১৯ সালের অক্টোবর মাসের কথা। বিএসএনএলকে পুনরুজ্জীবিত করতে একাধিক প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্র। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটিকে সংযুক্ত করা হয়েছিল এমটিএনএলের সঙ্গে। পাশাপাশি জমি বেচে ৩৮ হাজার কোটি টাকার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল কেন্দ্র সরকার। তবে বিগত দু’বছরে ধামা চাপা পড়ে গিয়েছিল সেই প্রকল্পের কথা। এলআইসি, ওএনজিসি, ভারত পেট্রোলিয়ামের মতো একাধিক রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার সম্পত্তি বিক্রি করা হলেও হাত পড়েনি বিএসএনএলে। অবশেষে নিলামে চড়ল বিএসএনএলও।

আরও পড়ুন
‘বিক্রি’-র পথে আরও ২৭ রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, তালিকায় বেঙ্গল কেমিক্যালসও!

সাম্প্রতিক সময়ে জিও, এয়ারটেলের সঙ্গে পাল্লা দিতে একাধিক নতুন প্ল্যান এবং ফোর-জি পরিষেবা চালু করেছিল বিএসএনএল। তবে তারপরেও ধাক্কা খাচ্ছে ব্যবসা, তাতে সন্দেহ নেই কোনো। অন্যদিকে বেতন সমস্যাতেও জর্জরিত সংশ্লিষ্ট সংস্থাটি। ক্ষোভ বাড়ছে কর্মীদের মধ্যেও। এখন দেখার, কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ আদৌ কোনো সমাধান এনে দেবে, নাকি আরও জটিল করে তুলবে সংস্থার বর্তমান পরিস্থিতিকে…

আরও পড়ুন
বেসরকারি হাতে যাবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কও? মিলছে তেমনই ইঙ্গিত

Powered by Froala Editor

More From Author See More