২০০০ বছরেও ‘অক্ষত’ রথ, উদ্ধার ইতালির প্রত্নক্ষেত্রে

ইতালির প্রত্নক্ষেত্র পম্পেই, আজও তার মধ্যে লুকিয়ে আছে প্রাচীন যুগের নানা অজানা ইতিহাস। ঠিক তেমনই এক নিদর্শন পাওয়া গেল সম্প্রতি। আগ্নেয়গিরির লাভার নিচেই লুকিয়ে ছিল ঘোড়ায় টানা প্রাচীন রথ। প্রত্নতাত্ত্বিকরা আবিষ্কার করলেন দুই চাকার সেই যান। আর এর থেকে দক্ষিণ আলপস অঞ্চলের প্রাচীন জনজাতির জীবনধারার অনেক তথ্যই জানা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

ইতালির অন্যতম দর্শনীয় স্থানগুলির একটি পম্পেই প্রত্নক্ষেত্র। সবসময় সেখানে ভিড় লেগেই থাকে। তবে করোনা অতিমারীর কারণে এখন পর্যটকদের আনাগোনা বন্ধ করা হয়েছে। আর তার ফলেই প্রত্নতাত্ত্বিকরা নতুন করে আবিষ্কার করতে পারছেন অজানা আরও নমুনা। ৭ জানুয়ারি নতুন করে খননকার্য চালাতে চালাতেই একটি ধাতব গঠনের মাথা দেখতে পাওয়া যায়। অবশ্য সম্পূর্ণ রথটি অক্ষত অবস্থায় পাথর থেকে বের করে আনতে কয়েক সপ্তাহ লেগে গিয়েছে বলেই জানাচ্ছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা।

মূলত লোহার তৈরি এই রথটির গায়ে অসাধারণ কারুকার্য অবাক করেছে প্রত্নতাত্ত্বিকদের। আর নানা ধরণের অলঙ্করণ ফুটিয়ে তোলার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ব্রোঞ্জ এবং টিন। ঐতিহাসিকদের প্রাথমিক মত, এই রথের দুটি কক্ষে পুরোহিত ও মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা বসার ব্যবস্থা ছিল। এই রথ বিবাহের অনুষ্ঠানেও ব্যবহার করা হয়ে থাকতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। তবে অন্য কোনো ধরণের উৎসবে তার ব্যবহার ছিল কিনা, সেটা জানতে আরও গবেষণার প্রয়োজন বলে মনে করছেন ঐতিহাসিকরা।

আনুমানিক ৭৯ খ্রিস্টাব্দে ভিসুভিয়াসের অগ্ন্যুদ্গারের ফলে পম্পেই শহর লাভার নিচে চাপা পড়ে যায়। ঠিক কোন ধরণের জনজাতির বাস ছিল সেখানে, তাও আজ নির্দিষ্টভাবে জানা যায় না। তবে আগ্নেয় শিলার নিচে প্রায় সমস্ত নমুনাই অক্ষত অবস্থায় রয়ে গিয়েছে। এখনও অবধি তার মাত্র ২০ হেক্টর অঞ্চল খনন করা সম্ভব হয়েছে। আগামীদিনে খননকার্য যত এগোবে, পম্পেই শহরের প্রাচীন ইতিহাস সম্পর্কে আরও নানা রোমাঞ্চকর তথ্য যে উঠে আসবে তাতে সন্দেহ নেই।

আরও পড়ুন
মমির মুখে সোনার জিভ! কফিনের ঢাকনা খুলতেই অবাক প্রত্নতাত্ত্বিকরা

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
১৫০০ বছর আগেও ভারতে প্রচলিত ছিল ভূমিকম্প-প্রতিরোধক নির্মাণকৌশল, তাজ্জব প্রত্নতাত্ত্বিকরা

More From Author See More

Latest News See More