গান্ধীজিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে বিশেষ স্মারক-মুদ্রা, দীপাবলিতে চমক যুক্তরাজ্যের

শুধু ভারত নয়, গোটা বিশ্বকেই শান্তি, অহিংসার মধ্যে দিয়ে মুক্তির পথ দেখিয়েছিলেন তিনি। মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। এবার তাঁর জীবন, মতাদর্শ এবং দর্শনকে শ্রদ্ধা জানিয়ে বিশেষ ধাতব মুদ্রা (Gandhi Commemorative Coin) প্রকাশ করল যুক্তরাজ্যের রয়্যাল মিন্ট (Royal Mint)। দীপাবলি উপলক্ষে গতকাল এই বিশেষ মুদ্রাটির উন্মোচন করলেন ব্রিটেনের চান্সেলর ঋষি সুনক। রয়্যাল মিন্টের দীপাবলি সংগ্রহের অংশ হবে এই মুদ্রাটি, এমনটাই জানাচ্ছে মিন্ট কর্তৃপক্ষ।

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে মহাত্মা গান্ধীর অবদানকে স্বীকৃতি জানিয়ে মুদ্রা প্রকাশের কথা গত বছরের আগস্ট মাসেই ঘোষণা করেছিল রয়্যাল মিন্ট অ্যাডভাইসারি কমিটি। তবে গোটা পরিকল্পনাটাই ছিল যুক্তরাজ্যের ‘মাস্টার অফ দ্য মিন্ট’ ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনকের। এক বছর পেরিয়ে এসে এবার দীপাবলিতেই চমক দিল ব্রিটেন। উল্লেখ্য, এটিই ব্রিটেন সরকার কর্তৃক প্রকাশিত প্রথম গান্ধী-স্মারক মুদ্রা।


বিগত কয়েক মাস আগেই শুরু হয়েছিল মুদ্রার নকশা বানানোর কাজ। মিন্টে জমা পড়েছিল সব মিলিয়ে ৫টি নকসা। তার মধ্যে হিনা গ্লোভারের করা নকসাটিকেই চূড়ান্ত বলে বেছে নেন ঋষি সুনক। সংশ্লিষ্ট ৫ পাউন্ডের মুদ্রাটিতে গান্ধীজির ছবি ছাড়াও থাকছে ভারতের জাতীয় ফুল পদ্মের ছবি। থাকছে তাঁর বিখ্যাত উক্তি, “My life is my message”। সাধারণ মুদ্রার পাশাপাশি সোনা ও রৌপ্যমুদ্রা হিসাবেও এই বিশেষ গান্ধী-মুদ্রা অর্থের বিনিময়ে মিন্ট থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন সাধারণ মানুষ। 

আরও পড়ুন
সাভারকার ভাইদের ক্ষমা প্রার্থনার পরামর্শ দিয়েছিলেন খোদ গান্ধীজি?

তবে শুধু গান্ধী-মুদ্রাই নয়, দীপাবলি উপলক্ষে ১, ৫ ও ২০ গ্রামের লক্ষ্মী-চিত্রিত বিশেষ সোনার বারও প্রকাশ করেছে রয়্যাল মিন্ট কর্তৃপক্ষ। ভারত ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক এবং সাংস্কৃতিক যোগাযোগকে আরও দৃঢ় করে তুলতেই এই উদ্যোগ ব্রিটেনের। এখানেই শেষ নয়। আগামীতে বিশ্বযুদ্ধে অংশ নেওয়া আরও বেশ কিছু ভারতীয় মহিলা সেনানীর ছবি নিয়েও মুদ্রা প্রকাশের কথা জানিয়ে রেখেছে ব্রিটিশ প্রশাসন…

আরও পড়ুন
গান্ধী জয়ন্তীতে ট্রেন্ডিং ‘নাথুরাম গডসে জিন্দাবাদ’ – ট্যুইটারজুড়ে হিংসার ইঙ্গিত

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
কলকাতার বসে আজও ‘স্বাধীন পাশতুনিস্তান’-এর স্বপ্ন বোনেন সীমান্ত গান্ধীর পৌত্রী

More From Author See More

Latest News See More