সমুদ্রতটে একের পর এক কবর, সরকারের করোনা নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ব্রাজিলে

যদিও করোনা সংক্রমণের ভয়ে এখন আর পর্যটকদের আনাগোনা নেই, তবু মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশ এমন রাতারাতি বদলে যাওয়ায় হতবাক অনেকেই। ব্রাজিলের কোপাকাবানা সমুদ্রতটে গেলে এখন দেখতে পাওয়া যাবে শতাধিক কবর। প্রতিটা কবরের উপর কালো রঙের ক্রস যেন পরিবেশটাকে আরও ভয়ঙ্কর করে তুলেছে। তবে এই প্রতিটা কবর আসলে প্রতীকী। গত কয়েক মাসে ব্রাজিলে যে ৪০ হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন করোনা ভাইরাসের আক্রমণে, তাঁদের স্মরণেই এই প্রতীকী সমাধিক্ষেত্র তৈরি করেছে রিও-ডি-পাজ নামের একটি এনজিও।

সারা পৃথিবীতে করোনা আক্রান্ত দেশগুলির মধ্যে যদি প্রথম স্থানে থাকে আমেরিকার নাম, তাহলে দ্বিতীয় স্থানে অবশ্যই ব্রাজিল। এখনও পর্যন্ত সেদেশে ৮ লক্ষের বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। কিন্তু এর মধ্যেই সরকারের অবস্থান রীতিমতো সমালোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রেসিডেন্ট জেয়র বলসনারো কখনও স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিচ্ছেন লকডাউন শিথিল করার জন্য, কখনও আবার তাঁর কথায় সাধারণ মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছেন, আদৌ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা প্রয়োজন কিনা। স্বাভাবিকভাবেই প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ ব্রাজিলের শিক্ষিত মানুষ। এমনকি রাস্তায় নেমেও প্রতিবাদ দেখিয়েছেন তাঁরা। সেই প্রতিবাদের অংশ হিসাবেই রাতারাতি কোপাকাবানা হোটেলের সামনে বালিয়াড়িতে এই প্রতীকী প্রতিবাদ গড়ে তোলা হয়েছে।

অবশ্য এই অভিনব প্রতিবাদের ভাষাকেও অনেকের ব্যাঙ্গ অথবা বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয়েছে। সরকারের পক্ষে থাকা অনেকে একে কুৎসিত বলে মন্তব্য করেছেন। কয়েকটি কবরের উপরের ক্রস তুলে দিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। আবার করোনায় সন্তানহারা এক বাবা এসে তাঁর মৃত সন্তানের উদ্দেশ্যে কয়েকটি ক্রস রেখে গিয়েছেন সমাধিক্ষেত্র উপর। ব্রাজিলের সাধারণ মানুষের কাছে এই প্রতিবাদের এমনই মিশ্র প্রতিক্রিয়া মিলেছে। তবে সারা বিশ্বজুড়ে সামাজিক মাধ্যমে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই প্রতিবাদ।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
ভেঙে গেল সব দেশের রেকর্ড, করোনায় একদিনে ৩৩,০০০ আক্রান্ত ব্রাজিলে

More From Author See More

Latest News See More