সমুদ্র ছুঁল লাভাস্রোত, আরও আশঙ্কাজনক হয়ে উঠছে ক্যানারির পরিস্থিতি

গত সপ্তাহের কথা। ১৯ সেপ্টেম্বর ভয়াবহ বিস্ফোরণে হঠাৎ করেই কেঁপে উঠেছিল ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের লা পালমা দ্বীপ। কুম্ব্রে ভিজা জাতীয় উদ্যানের কাছে ঘুম ভেঙে জেগে উঠেছিল আগ্নেয়গিরি। এখনও পর্যন্ত প্রায় আড়াইশো হেক্টরেরও বেশি জমি, লোকালয় একটা বড়ো অংশ গ্রাস করেছে লা পালমার এই আগ্নেয়পর্বত। কিন্তু তারপরেও খিদে কমেনি তার। এবার তার জ্বলন্ত লাভাস্রোত প্রায় পৌঁছে গেল আটলান্টিক মহাসাগরে।

গতকাল রাতেই ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জের আগ্নেয়গিরি গবেষণা কেন্দ্র ইনভোলকান ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে টুইট করে সতর্ক করা হয়, প্লেয়া নুয়েভা সমুদ্রতট পর্যন্ত পৌঁছে গেছে লাভা। তবে সমুদ্র থেকে ৮০০ মিটার দূরে এসে প্রাথমিকভাবে আটকে গিয়েছিল লাভার স্রোত। তবে তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সত্যি হয় আশঙ্কা। পর্যটক এবং বহিরাগতদের প্রবেশ আগেই নিষিদ্ধ করেছিল ক্যানারি প্রশাসন, গতকাল জরুরি তৎপরতায় স্থানীয় বাসিন্দাদের জন্যও ঘোষিত হয় অলিখিত লকডাউন। জারি করা হয়েছে রেড অ্যালার্ট। ঘটনাস্থলের নিকটবর্তী ২ নটিক্যাল মাইল অঞ্চলের বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অন্যত্র।

জলের সঙ্গে লাভার রাসায়নিক বিক্রিয়ায় নির্গত বিষাক্ত গ্যাসে ইতিমধ্যেই ঢেকে গেছে ক্যানারির আকাশ। গবেষকরা সতর্ক করছেন, চোখ, নাক, ত্বক এবং শ্বাসতন্ত্রে প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে এই ধরনের বিষাক্ত গ্যাসের মেঘ। প্রাণঘাতী হয়ে উঠতে পারে অ্যাজমা ও অন্যান্য শ্বাসজনিত রোগাক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে। পাশাপাশি জমাট বাঁধা লাভার টুকরো আগ্নেয়াস্ত্রের গুলির মতো সমুদ্র থেকে ছিটকে বেরিয়ে আসছে শীতল হওয়ার পরেই। সেই কারণে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে মৎস্য শিকারেও। পাশাপাশি ইনভোলকান ইনস্টিটিউটের বিবৃতিতে উল্লেখিত হয়েছে, লাভা জলস্পর্শ করার কারণে মাঝারি মাত্রায় কম্পন অনুভূত হতে পারে গোটা দ্বীপজুড়ে।

তবে শুধু মানবসভ্যতাই নয়, আটলান্টিকে লাভাস্রোত পৌঁছানোয় ভয়ঙ্করভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে চলেছে সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্রও। জলদূষণের পাশাপাশি, বহু প্রজাতির প্রাণী এবং জলজ উদ্ভিদের বিপন্ন হওয়ার সম্ভাবনাও ক্রমশ বাড়বে বলে দাবি গবেষকদের। ইতিমধ্যেই স্পেন সরকার এই ঘটনাকে প্রাকৃতিক বিপর্যয় হিসাবে ঘোষণা করেছে। বাস্তুচ্যুত ৬ হাজার মানুষের পুনর্বাসনের জন্য বরাদ্দ করেছে ১ কোটি ইউরো। আগ্নেয়গিরির ক্রমবিস্ফোরণ এবং ভয়াবহতা যেন ইঙ্গিত দিচ্ছে আগামীতে আরও বাড়তে চলেছে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ। প্রকৃতির এই ধ্বংসলীলা কোথায় গিয়ে থামবে, তা জানা নেই কারোরই…

আরও পড়ুন
হঠাৎ জেগে ওঠা আগ্নেয়গিরিতে বিস্ফোরণ, বিপন্ন সেন্ট ভিনসেন্ট দ্বীপ

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণে মৃত্যু প্রভু ও ক্রীতদাসের, ২০০০ বছর পর উদ্ধার দেহ!

More From Author See More

Latest News See More