ফেলে দেওয়া মাস্ক থেকেই জন্মাবে গাছ, আবিষ্কার ভারতীয় পরিবেশকর্মীর

মহামারীর প্রাদুর্ভাবের পর থেকেই গোটা বিশ্বজুড়ে এক ধাক্কায় বেড়ে গিয়েছিল মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের ব্যবহার। মারণ ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে যে মাস্কের কোনো বিকল্প নেই, একথা অস্বীকারের জায়গাও নেই কোনো। কিন্তু ডিসপোজেবল মাস্কই বর্তমানে হয়ে উঠেছে পরিবেশের অন্যতম শত্রু। গতবছরের রিপোর্ট অনুযায়ী, শুধু ২০২০ সালে সমুদ্রে মিশেছে প্রায় দেড়শো কোটি ব্যবহৃত মাস্ক। এবার সেই সমস্যারই অভিনব সমাধান দিলেন এক ভারতীয় পরিবেশকর্মী ও উদ্ভাবক। বানিয়ে ফেললেন অভিনব জৈব মাস্ক। যা মাটিতে ফেলার পর পরিণত হবে বৃক্ষে।

নীতিন ভাস। কর্ণাটকের ম্যাঙ্গালুরুর এই পরিবেশকর্মী দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করে আসছেন প্লাস্টিক দূষণ নিয়ে। ২০১৬ সালে প্লাস্টিক ব্যবহারের বিকল্পের সন্ধান দিতে অভিনব একটি উদ্যোগ নেন নীতিন। বিভিন্ন ফলের বীজ থেকে তৈরি করেন জৈব, বিয়োজনশীল এক বিশেষ ধরনের কাগজ। যা বর্জ্য হিসাবে মাটিতে ফেললে সেখান থেকেই জন্ম নেয় গাছের চারা। 

২০১৭ সালে বীজ থেকে পুনর্ব্যবহারযোগ্য এই কাগজ উৎপাদনের জন্য আস্ত একটি কারখানাও স্থাপন করেন নীতিন। খাতা, বুকলেট, ভিডিটিং কার্ড থেকে শুরু করে পেন, পেনসিল— সবকিছুই উৎপাদিত হত ‘পেপার সিড অ্যান্ড কোং’ নামের সেই কোম্পানিতে। আর এই কাজের জন্য বিশেষভাবে প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রান্তিক অঞ্চলের মহিলা এবং যুবকদের নিয়োগ করা হত কর্মী হিসাবে। পুরো লভ্যাংশটাই তুলে দেওয়া হত তাঁদের হাতে। 

করোনা আবহে মাস্ক-দূষণের সমাধান করতে এবার সেই পথেই হাঁটলেন নীতিন। কাপড়ের সঙ্গে বিভিন্ন ফলের বীজের পাল্প মিশিয়ে তৈরি করলেন বিশেষ জৈব মাস্ক। কার্যকারিতার নিরিখে মেডিক্যাল মাস্কের সমতুল্য এই সুতির মুখোশ। পাশাপাশি তার কাঁচামালও সংগ্রহ করা হচ্ছে কর্ণাটকের বিভিন্ন টেলারিংয়ের কারখানা থেকে। পোশাক তৈরির কাপড়ের অবশিষ্টাংশকে পুনর্ব্যবহৃত করায়, কমছে আবর্জনার পরিমাণও। 

আরও পড়ুন
বৃক্ষচ্ছেদন রুখতে গাছের গায়ে ভগবানের ছবি সাঁটা ছত্তিশগড়ে

শুরুর দিকে বিনামূল্যে এই মাস্ক বিতরণ করলেও, বর্তমানে অর্থের বিনিময়েই হাতে তৈরি করা এই মাস্ক বিক্রি করছে ‘পেপার সিড অ্যান্ড কোং’। মূল্য মাত্র ২৫ টাকা। তবে ভারতের বাজারে সেইভাবে এই মাস্কের চাহিদা তৈরি না হলেও, বিদেশ থেকে ইতিমধ্যেই বড়ো পরিমাণের অর্ডার আসতে শুরু হয়েছে কর্ণাটকের এই কারখানায়। নীতিনের উদ্ভাবিত প্রযুক্তিতে বাণিজ্যিকভাবে এই মাস্ক উৎপাদনের আগ্রহও দেখিয়েছে বহুজাতিক বেশ কিছু সংস্থা। আগামীদিনে তরুণ ভারতীয়ের তৈরি এই জৈব পদার্থই যে পৃথিবীর সুস্থতা ফেরাতে সক্ষম, তা নিয়ে সন্দেহ নেই কোনো…

আরও পড়ুন
দিল্লিতে মেট্রো সম্প্রসারণ, কাটা পড়ছে সহস্রাধিক গাছ

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
রাতারাতি উজাড় সহস্রাধিক গাছ, আরাবল্লী-কাণ্ডে সরব পরিবেশকর্মীরা