জৈবজ্বালানিতেই উড়বে বিমান, পথ দেখালেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত গবেষক

পেট্রোলিয়াম জ্বালানি নয়। এবার কৃত্রিমভাবে তৈরি উদ্ভিজ্জ জ্বালানিতেই (Plant Based Fuel) উড়বে বিমান। অবাক লাগলেও এমনটাই সত্যি। দূষণ নিয়ন্ত্রণ এবং পৃথিবীর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে এবার এমনই এক অভিনব পন্থার হদিশ দিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত গবেষক পুনিত দ্বিবেদী (Puneet Dwibedi)। বিশেষ প্রজাতির সরিষা উদ্ভিদ থেকে তৈরি এই জ্বালানিই আগামীদিনে হয়ে উঠতে চলেছে কার্বন নির্গমন নিয়ন্ত্রণে আনার মূল হাতিয়ার।

ব্রাসিকা ক্যারিনা। এই বিশেষ প্রজাতির সরিষা থেকেই উৎপাদিত হবে পরিবেশবান্ধব জ্বালানি। এই জ্বালানিতে একেবারেই কার্বন নির্গমন হবে না, তেমনটা নয়। তবে এই বিশেষ সরিষার তেল ৬৮ শতাংশ কমিয়ে আনতে পারে বিমানজনিত কার্বন দূষণের মাত্রা। যা একপ্রকার ভাবনাতীতই বটে। সাসটেনেবল অ্যাভিয়েশন ফুয়েল বা এসএএফ-সংক্রান্ত গবেষণাটিতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জর্জিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক পুনিত দ্বিবেদী। সম্প্রতি জিসিবি বায়োএনার্জি বিজ্ঞান পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে সংশ্লিষ্ট গবেষণাপত্রটি।

প্রশ্ন থেকে যায়, সরিষা জ্বালানি হিসাবে ব্যবহারের কারণে কি টান পড়তে পারে ভোজ্য তেলেও? না, তেমনটা নয়। পুনিত জানাচ্ছেন অন্য কথা। ব্রাসিকা ক্যারিনা নামের এই বিশেষ সরিষা প্রজাতির তেল সম্পূর্ণভাবেই খাওয়ার অনুপযোগী। ফলত, কেবলমাত্র বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে ব্যবহারের জন্য, পৃথকভাবেই হবে তার উৎপাদন। তাতে কার্বন নির্গমন কমার পাশাপাশি বাড়ছে শিল্পের ক্ষেত্রও। 

পরিসংখ্যান বলছে, বিশ্বের ২.৫ শতাংশ কার্বন নির্গমনের জন্য দায়ী বিমান শিল্প। যা বৈশ্বিক উষ্ণায়নের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় প্রায় ৩.৫ শতাংশ। এসএএফ উৎপাদন সেই মাত্রাকে অনেকটা কমিয়ে আনবে বলেই আশাবাদী গবেষকরা। ইতিমধ্যেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যারিনাটা-ভিত্তিক একটি সংস্থা এই বিশেষ জৈবজ্বালানি উৎপাদনের আগ্রহ দেখিয়েছে। বছর খানেকের মধ্যেই বাজারে চলে আসতে পারে অভিনব এই জ্বালানি। তবে শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নয়, ইউরোপ, এশিয়া এবং আফ্রিকারও বিস্তীর্ণ অঞ্চল এই বিশেষ সরিষাচাষের উপযুক্ত বলেই জানাচ্ছেন গবেষকরা। ফলে, আগামীদিনে এই শিল্প গড়ে উঠলে বদলে যাবে গোটা বিশ্বের অর্থনৈতিক হাল।

আরও পড়ুন
থেরাপিউটিক চিকিৎসায় দিশা দেখিয়ে সেরা বিজ্ঞানী-তালিকায় বঙ্গসন্তান

আর মূল্য? খরচের হিসাবেও এগিয়ে রয়েছে সরিষার জ্বালানি। যেখানে পেট্রোলিয়াম জ্বালানির খরচ প্রতি লিটারে ১.২৮ ডলার পর্যন্ত পৌঁছায়, সেখানে জৈবজ্বালানির উৎপাদন সম্ভব লিটার পিছু মাত্র ০.১২ ডলারের মধ্যে। ফলত, সার্বিকভাবে আকাশপথে যাতায়াতের খরচও অনেকটাই কমবে বলে আশাবাদী গবেষকরা। এখন দেখার কত দ্রুত ফসিল ফুয়েলকে প্রতিস্থাপন করতে পারে এই জৈবজ্বালানি…

আরও পড়ুন
জলবায়ু পরিবর্তনের আভাস দিয়ে নোবেল 'ভবিষ্যৎদ্রষ্টা' বিজ্ঞানীদের

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
১৩০ বছর পর্যন্ত ‘অনায়াসে’ বাঁচতে পারে মানুষ, বলছেন বিজ্ঞানীরা

More From Author See More

Latest News See More