করোনার প্রতিষেধক নিয়ে গবেষণার স্বীকৃতি, আন্তর্জাতিক সম্মান বঙ্গতনয়ার

আর হয়তো কয়েকটা মাসের অপেক্ষা। তারপর বাজারে আসতে চলেছে করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক। অন্তত এখনও পর্যন্ত সমস্ত পরীক্ষাতেই আশা ধরে রাখতে পেরেছে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির তৈরি প্রতিষেধকটি। শেষ পর্যন্ত এই প্রতিষেধক বাজারে এলে খুশি হবেন সকলেই। তবে ভারতীয়দের কাছে তার থেকেও বড় খুশির খবর, সমস্ত গবেষণাটির সঙ্গে জড়িয়ে আছে একজন ভারতীয়ের নামও। আর ঘটনাসূত্রে তিনি বাঙালি। জন্ম কলকাতা শহরেই। কোভিড প্রতিষেধকের গবেষণার সঙ্গে জড়িয়ে থাকা একমাত্র ভারতীয় বিজ্ঞানীকে এবার সম্মান জানাল প্রবাসী ভারতীয়দের নিয়ে তৈরি সংস্থা আই-গ্লোবাল।

গত মে মাসেই অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির প্রতিষেধকের প্রাথমিক সাফল্য জানা যায়। আর তার পরেই উঠে আসে গলফগ্রিনের চন্দ্রাবলী দত্তের নাম। গোখেল মেমোরিয়াল স্কুলের ছাত্রী চন্দ্রাবলী উচ্চশিক্ষার জন্য পাড়ি দিয়েছিলেন লন্ডন। লিডস ইউনিভার্সিটিতে স্নাতকোত্তরের শেষে বেশ কিছু বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেছেন। তারপরেই যোগ দেন অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে। এই গবেষণায় তিনি সামলেছেন অ্যাসিওরেন্স ম্যানেজারের দায়িত্ব।

প্রতি বছর নানা ৫টি বিভাগে বিশেষ সাফল্যের জন্য প্রবাসী ভারতীয়দের পুরস্কৃত করে আই-গ্লোবাল। লণ্ডনের বিখ্যাত ট্রাফলগার স্কোয়ারের মঞ্চেই এতদিন এই পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান হত। বহুসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকেছেন ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী সহ বেশ কিছু গণ্যমান্য ব্যক্তি। তবে এবছর করোনার প্রকোপে অনুষ্ঠান হল অনলাইনেই। ৮ নভেম্বর সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি চ্যাম্পিয়ন হিসাবে সম্মান জানানো হল চন্দ্রাবলীকে। ৪ মিনিট ১৫ সেকেন্ডের অনুষ্ঠান কলকাতায় বসেই দেখেছেন চন্দ্রাবলীর বাবা-মা। মাত্র ৩৪ বছর বয়সেই মেয়ের এই সাফল্যে খুশি তাঁরাও। সেইসঙ্গে আন্তর্জাতিক মঞ্চে বাঙালিদের সম্মান আরও একবার বৃদ্ধি পেল।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
করোনা প্রাণ কেড়েছে বন্ধুদের, ভ্যাকসিন ট্রায়ালেই ‘প্রতিশোধ’ মুম্বাই-এর ব্যক্তির

More From Author See More