ফের একসঙ্গে গুলজার ও রহমান, কথা-সুরের জাদুতে ভাসতে চলেছে দেশ

একজন পরিচিত ‘সম্পূরণ সিং কালরা’ নামে। অন্যজনের পরিচয় ‘মোৎজার্ট অফ মাদ্রাজ’। হ্যাঁ, কথা হচ্ছে গুলজার (Gulzar) এবং এ.আর. রহমানকে (A. R. Rahman) নিয়েই। ভারতীয় সঙ্গীতজগৎকে সুর এবং কথায় বার বার মন্ত্রমুগ্ধ করেছেন সঙ্গীতের এই দুই জিনিয়াস। তাঁদের যুগলবন্দি ভারতীয় শ্রোতাদের উপহার দিয়েছে ‘দিল সে’ কিংবা ‘জিয়া জ্বলে’-র মতো ঐতিহাসিক গান। এবার ফের গাঁটছড়া বাঁধতে চলেছেন দুই তারকা।

মাত্র কয়েকদিন আগের খবর। উদ্যোগপতি সুব্রত রায় সাহারার (Subrata Roy Sahara) বায়োপিক তৈরির কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোষণা করেছিলেন প্রযোজক সন্দীপ সিং। তবে কে সেই ছবির পরিচালনা করবেন, কে-ই বা অভিনয় করবেন মুখ্য চরিত্রে— সে ব্যাপারে মুখ খোলেননি তিনি। সেই তথ্য সামনে না আনলেও, এবার দর্শকদের চমকে দিল সন্দীপ সিং-এর নতুন বিবৃতি। সম্প্রতি তিনি জানালেন, সাহারার বায়োপিকে কথায় ও সুরে ফের দেখা যাবে রহমান-গুলজার জুটিকে। আর এই ঘোষণাতেই রীতিমতো সাড়া পড়ে গেছে দর্শকমহলে।

নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি সময় সেটা। ভারতের সঙ্গীতজগতে তখনও পর্যন্ত ‘কিংবদন্তি’ হয়ে ওঠেননি রহমান। তবে দু’চোখে স্বপ্ন আকাশছোঁয়া। চেন্নাইতে গুলজারের আসার কথা জানতে পেরে, শর্ট নোটিশেই তাঁর কাছে দ্বারস্থ হয়েছিলেন রহমান। আবেদন জানিয়েছিলেন নতুন সুর দেওয়া গানের লিরিক্সের জন্য। তবে সময়ের অভাবেই সেদিন রহমানকে খালি হাতেই ফেরান কিংবদন্তি। ২০১৮ সালে প্রকাশিত নাসির মুন্নির ‘জিয়া জ্বলে : দ্য স্টোরিস অফ সংস’ গ্রন্থে গুলজারের স্বয়ং উল্লেখ করেন সে-কথা। তবে বছর দেড়েকের মধ্যেই রহমানের সেই আক্ষেপ মিটে গিয়েছিল কড়ায়-গণ্ডায়। ১৯৯৮ সালের ‘দিল সে’ সিনেমায় প্রথমবারের জন্য দেখা যায় রহমান-গুলজার জুটিকে। ‘ছাঁইয়া ছাঁইয়া’, ‘জিয়া জ্বলে’ কিংবা ‘আয়ে আজনবি’-র মতো চিরসবুজ গানের জন্ম দিয়েছিল সেই যুগলবন্দি। তারপর বাকিটা ইতিহাস। ‘গুরু’, ‘স্লামডগ মিলিয়নেয়ার’, ‘রাবণ’-এর মতো সিনেমাতেও বার বার ম্যাজিক তৈরি করেছেন রহমান এবং গুলজার। এমনকি ‘স্লামডগ মিলিয়নেয়ার’-এর ‘জয় হো’ এনে দিয়েছিল অস্কার।

গত জুলাই মাসেই প্রকাশ পেয়েছিল গুলজার এবং রহমানের একক সঙ্গীত ‘মেরি পুকার শোনো’। তার মাস তিনেকের মধ্যেই আবার সুখবর এলো সঙ্গীতপ্রেমিদের কাছে। সাম্প্রতিক সময়ে, একাধিক বায়োপিক প্রকাশিত হলেও চলচ্চিত্র সমালোচকরা অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিলেন মুহুর্মুহু বায়োপিক তৈরির প্রাসঙ্গিকতা নেই। আঙুল উঠেছিল সিনেমার গুণগত মান নিয়েও। সুব্রত রায় সাহারার বায়োপিক কতটা প্রাসঙ্গিক হবে, কিংবা কতটাই বা তা মনজয় করে নিতে পারবে দর্শকদের— সে উত্তর একমাত্র সময়ই দেবে। তবে নিঃসন্দেহে বলা যায়, বলিউডের সঙ্গীত ইতিহাসে এক নতুন মাইলফলক স্থাপন করবে সন্দীপ সিং প্রযোজিত এই ছবি…

আরও পড়ুন
হতে পারতেন পেশাদার সঙ্গীতশিল্পীও; ভালোবেসেই সন্তুষ্ট বুদ্ধদেব

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
ভাঙচুর জাতীয় সঙ্গীত প্রতিষ্ঠানে, তালিবান রাজত্বে আবারও কোপ সঙ্গীতচর্চায়?

More From Author See More

Latest News See More