অস্ট্রেলিয়া নয়, একসময় ‘নিউ হল্যান্ড’ নামেই পরিচিত ছিল দেশটি!

এই তো কয়েকদিন আগের কথা। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বীরবিক্রমে উড়ল ভারতের পতাকা। অজিঙ্ক রাহানে, ঋষভ পন্থ, শুভমান গিলদের অনবদ্য ক্রিকেট তৈরি হল ইতিহাস। অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে এভাবে হারানো— সে এক অন্য উত্তেজনা। এতদূর অবধি ঠিক ছিল। এবার হঠাৎ করে আপনাকে বলা হল, অস্ট্রেলিয়া নয়; ভারত আসলে গিয়েছিল নিউ হল্যান্ডে। খটকা লাগবে তো? রাতারাতি একটা দেশের নাম বদলে গেল নাকি!

আজ্ঞে না। দেশের নাম-টাম এখনই বদলায়নি। অস্ট্রেলিয়া আছে অস্ট্রেলিয়াতেই। কিংবা বলা ভালো, নিউ হল্যান্ড আছে অস্ট্রেলিয়াতে। আরও ঘেঁটে গেল? সহজভাবে বললে, আজকে যাকে আমরা অস্ট্রেলিয়া বলে চিনি, পুরনো দিনের ম্যাপ ঘাঁটলে সেই নামটি খুঁজে পাওয়া যাবে না। সেখানেই দেখতে পাবেন ‘নিউ হল্যান্ড’-কে। অস্ট্রেলিয়ার পুরনো নাম; যে নামের মধ্যে দিয়েই ছুটে চলেছে ইতিহাসের স্রোত… 

সময়টা ১৭-শ শতক। বিশ্ব জুড়েই শুরু হয়েছে নৌ অভিযান। ইউরোপের দেশগুলি নতুন ভূখণ্ড খোঁজার লক্ষ্যে পৌঁছে যাচ্ছেন একের পর এক জায়গায়। পৃথিবীর মানচিত্র নতুন করে তৈরি হচ্ছে। আর এর মধ্যেই ডাচ নৌ-যাত্রীরা পৌঁছে যাচ্ছেন দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়ার দিকে। একদম নতুন একটা মহাদেশ খুঁজে পেলেন তাঁরা; বেশিরভাগই দ্বীপরাষ্ট্র। আর এই নৌ-যাত্রীদেরই একজন ছিলেন আবেল তাসমান। তিনিই আবিষ্কার করলেন আরেকটি দ্বীপরাষ্ট্র; নাম দিলেন ভ্যান ডিমেন’স ল্যান্ড। ভবিষ্যতে সেটাই পরিচিত হবে ‘তাসমানিয়া’ নামে। 

যাই হোক, সেই আবেল তাসমানই এসে বর্তমান অস্ট্রেলিয়ার নাম দিলেন ‘নিউ হল্যান্ড’। তারপর দীর্ঘদিন এই নামটিই ব্যবহার করে এসেছেন অভিযাত্রীরা। মনে রাখা দরকার, তখনও অস্ট্রেলিয়ার সম্পূর্ণটা আবিষ্কার হয়নি। আর সেখানেই হাজির হল ‘নিউ হল্যান্ড’। বদলটা এল ১৭৮৮ সাল নাগাদ। এবার একটু একটু করে ব্রিটিশরাও চলে এসেছে এখানে। পৃথিবীর অন্যান্য জায়গার মতোই তৈরি হল উপনিবেশ। নিজেদের মতো করে সবটা গড়ে নিলেন ব্রিটিশরা। আর এই সময় বদল এল নামেও। নতুন ভূখণ্ডের পশ্চিম ভাগটি পরিচিতি পেল ‘নিউ হল্যান্ড’ নামে। আর পূর্ব ভাগের নাম হল নিউ সাউথ ওয়েলস। অবশ্য এর পাশাপাশি আরও একটি নামও প্রচলিত ছিল— টেরা অস্ট্রালিস। যাকে ছোটো করে মাঝে মাঝে ‘অস্ট্রেলিয়া’ নামেও ডাকা হত…

আরও পড়ুন
মাটি খুঁড়ে বন্যপ্রাণীদের জল যোগাচ্ছে ওয়ামব্যাট, ‘মানবিক’ ছবি অস্ট্রেলিয়ায়

খেয়াল করুন, তখনও কিন্তু মহাবিক্রমে বজায় আছে নিউ হল্যান্ড। ম্যাপে, সরকারি কাজেও এই নামটি অনেকক্ষেত্রে ব্যবহৃত হচ্ছে। কিন্তু ব্রিটিশ উপনিবেশে ডাচ অস্তিত্ব কি রাখা যায়? উনবিংশ শতকে এসে বদল আনলেন ব্রিটিশরা। প্রায় মুছেই গেল নিউ হল্যান্ড। নতুন নাম হিসেবে জায়গা পেল সংক্ষিপ্ত নামটি— অস্ট্রেলিয়া। ব্যস, তখন থেকে আজও এই নামেই দেশটি পরিচিত। ওশিয়ানিয়া মহাদেশটিকেও অনেকে ‘অস্ট্রেলিয়া’ বলে ডাকেন। কিন্তু যাই হোক, ইতিহাসকে ভুললে চলে? অন্তত বইয়ের পাতাতেই থেকে যাক ‘নিউ হল্যান্ড’… 

আরও পড়ুন
হ্রদের জলের মধ্যে ‘ট্রি অফ লাইফ’, সন্ধান দিলেন অস্ট্রেলিয়ার চিত্রগ্রাহক

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
অস্ট্রেলিয়া থেকে পাড়ি দিয়েছিল এশিয়ায়, উদ্ধার ১০ কোটি বছরের প্রাগৈতিহাসিক ফুল

More From Author See More

Latest News See More