রাজপরিবার ছাড়ার পর প্রথম দীর্ঘ সাক্ষাৎকার, হ্যারি-মেগানের দিকে তাকিয়ে গোটা বিশ্ব

‘নিজেকে অনেক স্বতন্ত্র মনে হচ্ছে। নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নেওয়া কিংবা নিজের কথা প্রকাশ করায় এখন সম্পূর্ণ স্বাধীন আমি’।

৩৯ সেকেন্ডের ছোট্ট ট্রেলারে কথাগুলো বলতে শোনা গেছে ডাচেস অফ সাসেস্ক মেগান মার্কেলকে। যা টেলিভিশন সঞ্চালক ওপরা উইনফ্রে-র নেওয়া ২ ঘণ্টার সাক্ষাৎকারের ছোট্ট একটি অংশ। আজই মার্কিন মুলুকে 'সিবিএস টিভি' নেটওয়ার্কে প্রকাশ পেতে চলেছে ডিউক ও ডাচেসের সেই সম্পূর্ণ সাক্ষাৎকার। যা নিয়ে সারা বিশ্বের দর্শকদেরই উত্তেজনা তুঙ্গে।

গত ফেব্রুয়ারি মাসেই রাজকার্য থেকে চিরন্তন ‘ছুটি’ নিয়েছিলেন ব্রিটিশ রাজপরিবারের ষষ্ঠ উত্তরাধিকারী প্রিন্স হ্যারি ও রাজবধূ মেগান। যদিও আরও একবছর আগেই বাকিংহাম প্যালেস ছেড়েছিলেন তাঁরা। প্রথমে কানাডা এবং তারপর তাঁদের পাকাপাকি আস্তানা হয় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া। রাজপরিবারের অন্যতম এই দুই সদস্যের রাজবাড়ি-ত্যাগ এবং নতুন যাপনের কথাই যে ঘুরে ফিরে এসেছে উইনফ্রে-র সাক্ষাৎকারে, তা বলার অপেক্ষা থাকে না। সেইসঙ্গে রাজপরিবার ছাড়ার পিছনে হ্যারি-মেগানের কারণও এই আলোচনায় উঠে আসবে বলেই মনে করছেন বিশিষ্টজনেরা।

২০১৮ সালে অভিনেত্রী মেগানের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন প্রিন্স হ্যারি। আর তারপরেই শুরু হয়েছিল জল্পনা, বিতর্ক। নব রাজবধূর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল রাজপরিবারের দায়িত্বে থাকাকালীন তিনি কেনসিংটন প্যালেসের কয়েকজন কর্মীর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। কোনো এক কর্মচারীর আস্থাভাজন হয়ে দুই কর্মচারীকে বহিষ্কারেরও দাবি উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। ওই একই বছর থেকে মেগান এবং হ্যারি তাঁদের ব্যক্তিগত খরচ চালানোর জন্য রাজকোষ থেকে বন্ধ করে দেন অর্থগ্রহণ। তার বছর দেড়েকের মধ্যেই প্যালেস ছাড়েন রাজ-দম্পতি।

আরও পড়ুন
রাজা কৃষ্ণদেবরায়ের মৃত্যুস্মারক উদ্ধার, জানা যাবে বিজয়নগরের অজানা ইতিহাস

মেগানের বিরুদ্ধে করা অভিযোগের তদন্ত চলছে বলেই জানিয়েছে ব্রিটেনের রাজপরিবার। অন্যদিকে তাঁর বিরুদ্ধে যে মিথ্যের গুটি সাজানো হচ্ছে, সেই ইঙ্গিতই বার বার উঠে এসেছে মেগানের কথায়। পাশাপাশি মার্কিন প্রদেশে ভোটাধিকার, বর্ণবিদ্বেষ, সাম্য, পুলিশের নৃশংসতা নিয়ে কথা বলে আসা হ্যারি-মেগান এও দাবি করেছিলেন ব্রিটিশ রাজভবন এখনও নিজেকেই মুক্ত করতে পারেনি বর্ণবাদের ছায়া থেকে। প্রশ্ন উঠছে, গায়ের রঙের জন্যও কি রোষের মুখে পড়তে হয়েছিল ডাচেসকে? 

জীবিকার জন্য এখন নেটফ্লিক্স এবং স্পোটিফাইয়ের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন হ্যারি-মেগান। রাজপরিবারের কার্যক্রমে ইতি দিয়ে সোজা তারকার জীবন। আর এই দুইয়ের মাঝে বেশ কিছু বিতর্ক আর জটিল ধাঁধাঁ। উইনফ্রে-র প্রশ্নের উত্তরে তাদেরই কি জট কাটবে এবার? উন্মোচিত হবে রাজপরিবারের অন্দরমহলের রক্ষণশীলতা? সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে গোটা বিশ্ব…

আরও পড়ুন
বাকিংহ্যাম প্যালেসে নাৎসি-আক্রমণের ভয়, বন্দুক চালানো শিখলেন রাজকুমারী এলিজাবেথ

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More