সুপারহিট সিনেমার পরেও সুযোগ দেননি ছেলেকে, রাজ কাপুরের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ে রাজীবের

১৯৮৫ সাল। ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের মুখে মুখে তখন ঘুরছে সেই গান। ‘রাম তেরি গঙ্গা মাইলি’। তখন টিভি বলতে সাদা-কালো পর্দা। হাতে গোনা কয়েকটা বাড়ি আর ক্লাবে তখন জায়গা করে নিতে পারেছে অবাক বাক্স। আর সেই পর্দায় এই গানের দৃশ্য দেখতেই রীতিমতো ভিড় জমে যেত। কেননা এই গানে দেখা গেছে এক প্রতিভাবান নতুন মুখ। তিনি আর কেউ নন, স্বয়ং রাজ কাপুরের সন্তান রাজীব কাপুর। 

ভারতের চলচ্চিত্র জগতের শীর্ষস্থানে উঠে আসার সম্ভাবনা যে তাঁর ছিল না, তা নয়। তবে প্রথম সিনেমাই যেন কাঁটা হয়ে দাঁড়ায় তাঁর কেরিয়ারে। তখনও প্রকাশ পায়নি ‘রাম তেরি গঙ্গা মাইলি’। ১৯৮৩ সালে প্রথম ‘এক জান হুঁ হাম’ সিনেমায় অভিষেক হয় রাজীব কাপুরের। তবে বেশ কয়েকটি গানে সেই সিনেমাতে নাচের সময় শাম্মি কাপুরের স্টাইল অনুসরণ করেন তিনি। ফলত সিনেমা জগতে অনেকটাই যেন ‘শাম্মি কাপুরের ক্লোন’ হয়েই থেকে যেতে হয়েছে তাঁকে আজীবন। 

এই ছায়া থেকে সন্তানকে বের করে আনতে চেষ্টাও করেছিলেন রাজ কাপুর। সুযোগ দিয়েছিলেন ‘রাম তেরি গঙ্গা মাইলি’ সিনেমায় অভিনয়ের। সুপারহিট হয় সেই সিনেমা। তবে তাতে খুব কিছু লাভ হয়নি রাজীবের। বরং বাবার সঙ্গে খারাপের দিকেই বাক নেয় তাঁর সম্পর্ক। 

রাজ কাপুর পরিচালিত এই সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন অভিনেত্রী মন্দাকিনী। তিনিও তখন নতুন মুখ চলচ্চিত্র জগতে। সিনেমায় তাঁর সঙ্গে রাজীব কাপুরের গভীর চুম্বন দৃশ্য সাড়া ফেলে দিয়েছিল গোটা ভারতে। তবে তাতে আখেরে লাভ হয়েছিল মন্দাকিনীরই। রাতারাতি লাইমলাইটে চলে আসেন তিনি। অন্যদিকে সিনেমা হিট করার পরেও যেন অন্ধকারেই থেকে যান রাজীব কাপুর।

নিজের তৈরি সুপারহিট সিনেমায় অভিনয়ের পরেও সন্তানের এই ব্যর্থতা মেনে নিতে পারেননি রাজ কাপুর। তবে বাবার কাছে আরও একটি সুযোগ চেয়েছিলেন রাজীব। চেয়েছিলেন ‘রাম তেরি গঙ্গা মাইলি’-র মতোই আরও একটি সিনেমায় মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করতে। কিন্তু মুখ ফিরিয়ে নেন রাজ কাপুর। অভিনেতার আসনের জায়গায় সহ-পরিচালক হিসাবে সুযোগ দেন তাঁকে। আর সেই ঘটনার পরেই ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে তিক্ততা। বাবার সামনে কোনোদিন এই অভিমান প্রকাশ না করলেও, তাঁর মৃত্যুর পর মুখ খুলেছিলেন রাজীব কাপুর। বাবার ছায়ায় বেঁচে থাকা কতটা দুঃসাধ্য, তা-ই ফুটে উঠেছিল তাঁর কথায়।

‘রাম তেরি গঙ্গা মাইলি’, ‘আসমান’, ‘জবরদস্ত’, ‘লাভার বয়’, ‘হাম তো চলে পারদেশ’ ইত্যাদি বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন রাজীব কাপুর। তবে রাজ কাপুর কিংবা ঋষি কাপুরের মতো ধরে রাখতে পারেননি ফেমকে। হয়ে থাকতে পারেননি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু। 

আরও পড়ুন
কলকাতার প্রথম চাইনিজ রেস্তোরাঁ নানকিং; এসেছেন রবীন্দ্রনাথ, এমনকি রাজ কাপুর-নার্গিসও

১৯৯০ সালে ‘জিম্মেদার’ ছবিতে অভিনয়ের পরেই কেরিয়ারে ইতি টানেন রাজীব কাপুর। সরে যান প্রোডাকশন ইন্ডাস্ট্রিতে। প্রথম প্রযোজনা রণবীর কাপুর পরিচালিত ‘হেনা’। তাছাড়াও তাঁর পরিচালনাতেও বেরিয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমা। যার মধ্যে অন্যতম ঋষি কাপুর ও মাধুরী দীক্ষিত অভিনীত ‘প্রেম গ্রন্থ’। ১৯৯৯ সালে ‘চল আব লট চালে’ সিনেমার পিছনেও রয়েছেন তিনিই।

কিন্তু এত কিছুর পরেও যেন কাপুর পরিবারের সবথেকে কম জনপ্রিয় চরিত্র হয়েই রয়ে গেলেন তিনি। শূন্য দশকের পর থেকে যেন আড়ালেই কাটালেন বাকি জীবন। তবে তা সত্ত্বেও দর্শকদের দিয়ে গেলেন কিছু কিংবদন্তি মুহূর্ত। গতকাল, তাঁর অকালপ্রয়াণে ফিরে-ফিরে আসছে সেসব স্মৃতিই... 

তথ্যসূত্র—
১. রাজীব কাপুর, উইকিপিডিয়া
২. Living Up To The Hype Of Being Raj Kapoor’s Son Was Not Easy For Rajiv Kapoor, Giridhar Jha, Outlook India    
3. The Kapoors – Madhu Jain

আরও পড়ুন
টেলিভিশনে ব্যোমকেশ; রাজিত কাপুরকে সঙ্গী করে হিন্দিতেই বাজিমাত বাসু চট্টোপাধ্যায়ের

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More