মোঘল মিউজিয়ামের নামকরণ শিবাজির নামে! প্রতিবাদে সরব জাঠরা

শক, হূন, পাঠান, মোঘলদের দিন চলে গিয়েছে বহু আগেই। শুধু ইতিহাসের কিছু চিহ্ন আজও থেকে গিয়েছে। আর থেকে গিয়েছে কিছু নাম। উত্তর ভারতের পথেঘাটে ঘুরতে ঘুরতে এমন নানা নাম খুঁজে পাওয়া যায়। কিন্তু যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই বহু স্থানের নাম পালটে ফেলা হতে থাকে। আর এর মধ্যে মুসলমান শাসকদের ইতিহাস মুছে ফেলে হিন্দু রাজত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা একেবারেই লুকিয়ে রাখা হয়নি।

আবারও সেই বিতর্কের মুখে উত্তরপ্রদেশ সরকার। নির্মীয়মান সংগ্রহশালা ‘মোঘল মিউজিয়াম’-এর নাম পরিবর্তন করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও জানিয়েছেন যে ভারতের কিংবদন্তি বীর ছত্রপতি শিবাজির নামে নামকরণ হবে এই মিউজিয়ামের। আর এই ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

আগ্রা শহরের সঙ্গে যে মোঘল সাম্রাজ্যের দীর্ঘ ইতিহাস ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে, সেকথা নতুন করে বলার কিছু নেই। কিন্তু শিবাজির সঙ্গে এই শহরের আদৌ কোনো যোগাযোগ আছে কি? এই প্রশ্নকেই সম্প্রতি উস্কে দিচ্ছে আগ্রার জাঠ মহাসভা। প্রেসিডেন্ট শৈলরাজ সিং জানিয়েছেন, আগ্রা কারাগারে কিছুদিন বন্দি ছিলেন শিবাজি। এছাড়া তাঁর সঙ্গে আগ্রা শহরের কোনো সম্পর্ক নেই। কিন্তু আগ্রার জাঠ শাসক মহারাজা সুরজমল এবং তাঁর পুত্র জওহর সিং-এর ইতিহাস প্রায় ভুলতে বসা হয়েছে। অথচ একসময় মোঘলদের দমন করে ১৭৬১ থেকে ১৭৭৪ সাল পর্যন্ত আগ্রা শাসন করেছেন তাঁরা। এমনকি পরাজিত মারাঠাদের এই আগ্রা শহরেই আশ্রয় দিয়েছিলেন তিনি। তাই মিউজিয়ামের নাম যাতে মহারাজ সুরজমলের নামে নামাঙ্কিত হয় সে বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলেও জানিয়েছেন শৈলরাজ সিং।

তবে আগ্রার কারাগারে শিবাজির বন্দি থাকার কাহিনির সপক্ষেও কোনো প্রমাণ নেই বলে জানিয়েছেন ঐতিহাসিক রাজকিশোর রাজে। যদিও মহারাজা সুরজমলের অবদান অস্বীকার করতে চাননি তিনি। কিন্তু ইসলামিক ইতিহাস মুছে ফেলার চেষ্টার সমালোচনা করেছেন ভারতীয় মুসলিম বিকাশ পরিষদের সভাপতি সামি আঘাই। তিনি এবিষয়ে মন্তব্য করেছেন, ভারতের ইতিহাসে মোঘলদের সমস্ত অবদানই যদি মুখ্যমন্ত্রী অস্বীকার করতে চান তাহলে মোঘলদের তৈরি প্রাসাদ থেকে খাজনা সংগ্রহও বন্ধ করে দেওয়া উচিৎ। তিনি আরও জানিয়েছেন, মোঘল ইতিহাসকে বাদ দিলে আগ্রার সঙ্গে ভারতের আর পাঁচটা শহরের কোনো পার্থক্যই থাকে না। এখনও আগ্রা বলতেই সবাই এক ডাকে চেনেন তাজমহল, লালকেল্লা এবং আরও নানা প্রাসাদ যা কিনা মোঘলরাই তৈরি করেছেন। তবে এইসব বিতর্কের নিষ্পত্তি কোথায়, সেটা সময়ই বলবে।

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More