অক্টোবরে বেকারত্বের হার বাড়ল আরও, সত্যিই কি ‘সচল’ ভারতের অর্থনীতি?

পেরিয়ে গেছে লকডাউন। দেশ সর্বতভাবেই এখন হাঁটছে স্বাভাবিক ছন্দে। খুলে গেছে অধিকাংশ কল-কারখানা, কর্মসংস্থানই। তবুও চাকরির দিশা দেখতে পাচ্ছেন না দেশের মানুষ। চলতি মাসে আরও খানিকটা বৃদ্ধি পেয়েছে ভারতের বেকারত্ব। সম্প্রতি এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ্যে আনল বেসরকারি সংস্থা সেন্টার ফর মনিটারিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি।

সিএমআইআই-এর প্রকাশিত সাম্প্রতিক গবেষণায় জানানো হয়, ভারতে অক্টোবর মাসে বেকারত্বের হার ৬.৯৮ শতাংশ। যা গত সেপ্টেম্বর মাসে ছিল ৬.৬৭ শতাংশ। অর্থাৎ, এক মাসের মধ্যেই দেশে বেকারত্বের হার বেড়েছে ৪.৬৫ শতাংশ।

পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জনবহুল দেশ ভারত। আর সেখানেই কার্যত থাবা বসিয়েছে অর্থনৈতিক মন্দা। চলতি বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকেই -২৩.৮ শতাংশে নেমে এসেছিল দেশের জিডিপি। একদিকে বন্ধ নতুন কর্মী নিয়োগ। তেমনই অন্যদিকে চলছে ছাঁটাইয়ের প্রক্রিয়াও। রোজই নতুন করে কাজ হারাচ্ছেন বহু বহু মানুষ। সিএমআইআইয়ের রিপোর্ট অনুযায়ী এই পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত ভারতের ৮২ লক্ষ মানুষ। যার পরিমাণ এক কথায় অকল্পনীয়। সরকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় ত্রৈমাসিকে জিডিপি বৃদ্ধির ব্যাপারে আশাবাদী হলেও, তা কার্যত অসম্ভব। চোখে আঙুল দিয়ে এমনটাই দেখিয়ে দিচ্ছে সমীক্ষা।

গত মার্চ মাসের শেষ থেকেই দেশে লাগু হয়েছিল সম্পূর্ণ লকডাউন। জুলাইয়ের শেষ থেকে ধীরে ধীরে শিথিল করা হয় নিয়মাবলি। কিছু কিছু জায়গায় বিক্ষিপ্তভাবে লকডাউন চললেও সার্বিকভাবে তুলে নেওয়া হয় অচলাবস্থা। অথচ সংক্রমণ যে আয়ত্তে এসেছিল তেমনটা নয়। শুধু উদ্দেশ্য ছিল অর্থনীতিকে সচল করা। কিন্তু সেদিকেও কি কোনো লাভ হয়েছে তেমন? সেই প্রশ্নই ঘুরে ফিরে আসছে বর্তমান সমীক্ষায়। একদিকে যেমন আকাশছোঁয়া সংক্রমণ, সেইসঙ্গে জীবিকার অভাব। প্রশাসনিক সিদ্ধান্তের ব্যর্থতার জেরেই সংকটে ভারতীয় নাগরিকরা। এই পরিস্থিতি থেকে মুক্তি ঠিক কীভাবে, জানা নেই কারোর...

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More