মেটাভার্সে স্বাস্থ্যপরিষেবা, নেপথ্যে ভারতীয় উদ্যোগপতি

মেটাভার্স, এই মুহূর্তে অন্যতম আলোচিত একটি বিষয়। সাধারণ মানুষের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে আগ্রহ তো রয়েছেই, সেইসঙ্গে ব্যবসায়ী ও পুঁজিপতিদের মধ্যেও শুরু হয়ে গিয়েছে প্রতিযোগিতা। স্ট্র্যাটেজি অ্যানালিটিক্স সংস্থার হিসাব বলছে, আগামী ৫ বছরের মধ্যে অন্তত ৪২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ হতে চলেছে এতে। আর এবার এই জগতে এক নতুন দিগন্ত খুলে যেতে চলেছে ভারতীয় উদ্যোগপতির দৌলতে। মেটাভার্সের দুনিয়ায় বিশ্বের প্রথম স্বাস্থ্য পরিষেবা সংস্থা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করতে চলেছে ‘লিমোভার্স’ (Limoverse)। আর এর নেপথ্যে রয়েছেন বিখ্যাত ব্যবসায়িক পরামর্শদাতা সজীব নায়ারের (Sajeeb Nair) ছেলে আদিত্য নারায়ণ (Aditya Narayan)।

মেটাভার্স এক আজব দুনিয়া। নানা দেশের সীমান্ত পেরিয়ে সে এক অন্য দেশ। যেখানে মানুষের সম্পূর্ণ অস্তিত্বই থাকবে ইন্টারনেটে। ১৯৯৪ সালে নিয়েল স্টিফেনসনের কল্পবিজ্ঞান কাহিনিকে অনুপ্রেরণা করে এই মেটাভার্সের নির্মাণে উঠে পেরে লেগেছেন ডিজিট্যাল দুনিয়ার সমস্ত নেতারা। বিল গেটস এবং জুকারবার্গের সাম্প্রতিক প্রতিযোগিতার কথা তো সকলেরই জানা। আর সেই দৌড়েই এবার নিরবে পা মেলালেন আদিত্য নারায়ণ। একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, ইন্টারনেট যে শুধুই সামাজিক মেলামেশার জায়গা নয় সেটা বিগত অতিমারী পরিস্থিতি প্রমাণ করে দিয়েছে। আর কিছুদিনের মধ্যেই মানুষের গোটা জীবনটাই ঢুকে পড়বে ইন্টারনেটের দুনিয়ায়। কিন্তু সেখানে স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে সঠিক চিন্তাভাবনার অভাব রয়েছে।

সম্প্রতি ইন্টারনেটের দৌলতে চিকিৎসা সংক্রান্ত নানা ভুল তথ্যও ছড়িয়ে পড়ছে। এই সমস্যাটির কথাও তুলে ধরেছেন আদিত্য। আর সেই জায়গা থেকেই ‘লিমোভার্স’-এর পরিকল্পনা। প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে এই আয়োজনে রয়েছেন বিভিন্ন বিভাগের চিকিৎসক, পুষ্টিবিশেষজ্ঞ, এমনকি ফিটনেস এক্সপার্টরাও। এখন যেমন ইন্টারনেটে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিভিন্ন সাধারণ তথ্য পাই আমরা, সেই ব্যবস্থাটাই বদলে ফেলতে চান আদিত্য। বরং প্রতিটা মানুষের শারীরিক ব্যবস্থা যে আলাদা, তার উপরেই জোর দিতে চান তিনি। এখানে তাঁর ব্যক্তিগত শারীরিক তথ্যের পাশাপাশি জিনগত বৈশিষ্ট্য খতিয়ে দেখে তবেই কোনো সমাধানের কথা বলা হবে। আর এই পুরো ব্যবস্থাটাই চলবে ব্লক-চেইন মাধ্যমে। অর্থাৎ সেখানে কোনো দেশের আইন বা অর্থনীতিই খাটবে না। ভারতীয় আইন এখনও ব্লক-চেইন মাধ্যমকে স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়ে স্পষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। তবে এর মধ্যেই আদিত্য নারায়ণের এই উদ্যোগ ভারতে ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং ব্লক-চেইন মাধ্যমকে স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করবে বলে মনে করছেন অনেকেই।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
মেটাভার্সেই দূতাবাস! প্রথম রাষ্ট্র হিসাবে কীর্তি বার্বাডোজের

More From Author See More