‘করোনা চিনের তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের হাতিয়ার’, গোপন নথি প্রকাশ করে দাবি চিনা গবেষকের

আজারবাইজানের যুদ্ধ কিংবা রাশিয়ার ইউক্রেন অধিগ্রহণ— ‘আসন্ন’ তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ নিয়েই চর্চা চলছে গোটা দুনিয়াজুড়ে। কিন্তু সত্যিই কি এখনও অনেক দূরে, নাকি তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের মধ্যেই দিন কাটাচ্ছি আমরা? অন্তত এমন সম্ভাবনার কথাই শোনালেন চিনের ভাইরোলজিস্ট লি-মেং ইয়ং। জৈব অস্ত্র হিসাবে চিন ল্যাবরেটরিতে তৈরি করেছিল সার্স-কোভ-২ করোনাভাইরাস। এই দাবি এর আগেও উঠেছে বহুবার। তবে এবার এই প্রথম প্রকাশ্যে এল গোপন নথি।

চিনা চক্ষুবিশেষজ্ঞ ও ভাইরোলজিস্ট লি-মেং ইয়ং সম্প্রতি টুইটার অ্যাকাউন্টে চিনা ভাষায় লিখিত কিছু নথি এবং তার ইংরাজি অনুবাদ প্রকাশ করেন। সেখানেই উল্লেখিত হয়েছে ‘সার্স-কোভ-২’-এর কথা। তবে এই নথি আজকের নয়। ২০১৫ সালের। অর্থাৎ, আজ থেকে পাঁচ বছর আগেই সকলের অজান্তেই শুরু হয়ে গিয়েছিল গোপন প্রস্তুতি। লি-মেং-এর দাবি অনুযায়ী, ২০১৫ চিনের সামরিক গবেষকরা ল্যাবরেটরিতে জৈব-অস্ত্র হিসাবেই তৈরি করেছেন এই ভাইরাস। এমনকি খোদ ‘তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ’-এর কথাও উল্লেখিত হয়েছে সেই নথিতে।

এখানেই শেষ নয়। নথিতে বিস্তারিতভাবে লিপিবদ্ধ রয়েছে চিনের সামরিক প্রধান এবং গবেষকদের আলোচনাও। যেখানে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে করোনাভাইরাসের চারিত্রিক গঠনের কথাও। অধ্যাপকদের কাছে ভাইরাস তৈরির বেশ কিছু শর্তও আরোপ করেছিলেন সামরিক আধিকারিকরা। এই ভাইরাসের চারিত্রিক গঠন যেন প্রাকৃতিক জীবাণুর সঙ্গে হুবহু একই রকম হয়, সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বিজ্ঞানীদের। পাশাপাশি নজর দেওয়া হয়েছিল যাতে তা জেনেটিক মিউটেশনে সক্ষম হয়।

আশ্চর্যজনকভাবেই করোনাভাইরাসের সঙ্গে মিলে যাচ্ছে এই নথির সকল তথ্যই। প্রশ্ন উঠছে, সেই কারণেই কি একাধিকবার বিশ্বের বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন প্রাণীর দেহ থেকে সংক্রমণ হয়েছে এই ভাইরাসের? তবে, আকস্মিক কোনো দুর্ঘটনা নাকি ইচ্ছাকৃতভাবেই ‘তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ’-এর সূচনা করতেই এই ভাইরাসের সংক্রমণ— সে ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট ইঙ্গিত নেই নথিতে।

আরও পড়ুন
সীমান্ত ছেড়ে, করোনা মোকাবিলায় এবার সামিল সামরিক চিকিৎসকরাও

অন্যদিকে এই জল্পনাকে আরও খানিকটা বাড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান সংবাদ ও বিনোদন পোর্টাল নিউজ ডট কম। তাঁরাও একটি ‘ম্যান-মেড’ হিসাবে দাবি করেছেন করোনাভাইরাসকে। বেশ কিছু যুক্তি খাড়া করে দেখিয়েছেন পরবর্তী বিশ্বযুদ্ধের অন্যতম হাতিয়ার হতে চলেছে ‘বায়ো-ওয়েপন’। 

আরও পড়ুন
রক্তনালিতে 'বিষ' ছড়ায় করোনার স্পাইক প্রোটিন!

সব মিলিয়ে এই নতুন বিতর্ক ঘিরেই দোলাচলে গোটা পৃথিবী। উহান ল্যাবরেটরি নিয়ে নতুন করে চর্চা শুরু হলেও এখনও এই নথির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়ে ওঠেনি কোনোভাবে। তবে ইতিমধ্যেই চিনকে বিঁধেছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জের বলসোনারো। অন্যদিকে এই ভয়ঙ্কর অভিযোগের পরেও এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেনি বেজিং প্রশাসন। কী প্রত্যুত্তর দেবে জিং-পিং সরকার? সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে গোটা বিশ্ব…

আরও পড়ুন
করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গে বিপর্যস্ত নেপাল, আত্মসমর্পণ সরকারের

Powered by Froala Editor

More From Author See More