ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ছড়ানো হবে ৭৫০ মিলিয়ন মশা; ফ্লোরিডার পরিকল্পনায় অবাক সকলেই

রোগ ছড়াতে মশা-মাছির ভূমিকার কথা তো আমরা সকলেই জানি। কিন্তু রোগ নিয়ন্ত্রণ করতেও ছড়িয়ে দেওয়া হবে মশা? শুনতে আশ্চর্য লাগলেও এমন অভিনব প্রকল্পের কথাই বলছেন ফ্লোরিডার মশা-নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ ‘মস্কিউটো কি’-র আধিকারিকরা। আর আমেরিকা সরকারের কাছ থেকেও এ বিষয়ে সম্মতি পাওয়া গিয়েছে বলে জানানো হয়েছে। তবে এইসব মশার কোনোটাই স্বাভাবিক মশা নয়। বরং পরীক্ষাগারে জন্ম দেওয়া জেনেটিক্যালি মডিফায়েড মশা ছড়িয়ে দেওয়া হবে ফ্লোরিডায়। আর আগামী ২ বছরে প্রায় ৭৫০ মিলিয়ন মশা ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

তবে এই প্রকল্পের আসল উদ্দেশ্য কিন্তু সংক্রামক রোগ ছড়ানো মশাদের নিয়ন্ত্রণ করা। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া বা চিকনগুনিয়ার মতো অসুখে আজও জর্জরিত পৃথিবীর প্রায় সমস্ত দেশ। ফ্লোরিডাতেও সম্প্রতি ডেঙ্গু সংক্রমণ প্রায় মহামারীর আকার নিতে চলেছিল। ২০২০ সালে ৪৭ জনের শরীরে জিকা ভাইরাসের সন্ধান পাওয়া যায়। আর তাই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কৃত্রিম জিনের মশার উপরেই ভরসা রাখতে চাইছেন গবেষকরা। এই মশার সংখ্যা যত বাড়বে ততই হ্রাস পাবে সংক্রামক রোগ ছড়ানো মশার সংখ্যা। তবে তাতে আদৌ কাজের কাজ কিছু হয় কিনা, সেটা সময়েই দেখা যাবে।

তবে আমেরিকায় এমন পরীক্ষা ইতিপূর্বে না হলেও ২০১৬ সালে ব্রাজিল সরকার মশা নিয়ন্ত্রণ করতে এই পথেই হেঁটেছে। তাতে পরিস্থিতির খানিকটা উন্নতিও হয়েছিল। কিন্তু এই প্রকল্পের জন্য বিপুল খরচের বোঝা সামলাতে না পেরে শেষ পর্যন্ত ব্রাজিল সরকার পিছিয়ে আসে। তবে ফ্লোরিডায় কি সফল হবে এই পরীক্ষা। পাশাপাশি প্রশ্ন থেকে যায়, এভাবে জীবজগতকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা কি শেষ পর্যন্ত সুখকর হবে? নাকি ফ্র্যাঙ্কেনস্টাইনের গল্পের মতো মানুষকেই গিলে খাবে মানুষের আবিষ্কার?

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
করোনার জিনোম সিকোয়েন্স আবিষ্কার করলেন বাংলাদেশের বিজ্ঞানীরা, অপেক্ষা স্বীকৃতির

More From Author See More

Latest News See More