৪১ বছর বয়সে এক ম্যাচে ৫ উইকেট, টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে বিশ্বরেকর্ড সান্থা মূর্তির

ক্রিকেট, ফুটবল কিংবা হকি— যে-কোনো খেলার ক্ষেত্রেই মূল চাবিকাঠি হয়ে দাঁড়ায় বয়স। তবে বাড়তে থাকা বয়সকেও যে হার মানানো যায় পারফর্মেন্সে, এবার তাই প্রমাণ করে দিলেন চেন্নাইয়ের ৪১ বর্ষীয় পেসার সান্থা মূর্তি। গড়লেন এক নজিরবিহীন বিশ্বরেকর্ড। বিশ্বের প্রবীণতম বোলার হিসাবে টি২০-তে এক ম্যাচে ৫টি উইকেট নিলেন মূর্তি।

রবিবার সৈয়দ মোশতাক আলি ট্রফিতে এক স্বপ্নের খেলা খেললেন সান্থা মূর্তি। পণ্ডিচেরির হয়ে মাত্র ২০ রান দিয়ে তুলে নিলেন পাঁচ-পাঁচটি উইকেট। তাও তার মধ্যে রয়েছে প্রতিপক্ষ দল মুম্বাইয়ের প্রথম চার ব্যাটসম্যানই— যশস্বী জয়সওয়াল, আদিত্য তারে, সূর্যকুমার যাদব এবং সিদ্ধার্থ লাড। এর পর পঞ্চম উইকেট হিসাবে তিনি আউট করেন সুজিত নায়ককে। 

আর তারপরই কার্যত ভেঙে যায় ১৫ বছরের পুরনো রেকর্ড। যা এতদিন পর্যন্ত ছিল কেম্যান আইল্যান্ডের ক্রিকেটার কেনিউট তুলোচের পকেটে। ২০০৬ সালে যখন তুলোচ এই রেকর্ড তৈরি করেছিলেন তখন তাঁর বয়স ছিল ৪১ বছর ১৭ দিন। অন্যদিকে গত রবিবার সান্তা ৪১ বছর ১২৯ দিন বয়সে ভেঙে ফেললেন তাঁর রেকর্ড।

প্রায় দুই-আড়াই দশক আগে চেন্নাইয়ের একটি স্থানীয় ক্রিকেট ক্লাবে খেলা শুরু করেছিলেন মূর্তি। তবে তাঁর প্রধান লক্ষ্য ছিল একদিনের ক্রিকেট এবং টেস্ট ফর্ম্যাট। টি২০ ক্রিকেটের প্রতি সেইভাবে আগ্রহ ছিল না তাঁর। চেন্নাইয়ের পর মাদ্রাজ ক্রিকেট ক্লাব এবং স্বরাজ সিসি’র হয়ে বেশ কয়েকটি মরশুম খেলেন মূর্তি। তারপরও বহু পরে তাঁর পরিচয় হয় টি২০-এর ফর্ম্যাটের সঙ্গে। তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগে একটি দলের হয়ে খেলেছিলেন দুটি মরশুম। 

গতবছরই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অভিষেক হয় তাঁর। নাগাল্যান্ডের বিরুদ্ধে রঞ্জি ট্রফিতে উদ্বোধনী ম্যাচেও ৭টি উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। রঞ্জির ইতিহাসেও প্রবীণতম বোলার হিসাবে পাঁচ বা ততোধিক উইকেট নেওয়ার রেকর্ড তৈরি করেন মূর্তি। তবে রঞ্জি ট্রফি শেষ হওয়ার পরেই মহামারীর কারণে দেশজুড়ে থমকে গিয়েছিল ক্রিকেট-মহল। দীর্ঘ কয়েক মাস পেরিয়ে এসে ঘরোয়া ক্রিকেটে মাঠে নেমেই আবার ঝলসে উঠলেন সান্থা। তৈরি করলেন আরও একটি বিশ্বরেকর্ড।

সাম্প্রতিক সময়ে আরও যেন বেড়েছে তাঁর উইকেট-খিদে। ক্রমাগত ধারাবাহিক ফর্ম তিনি বজায় রেখেছেন ক্রিকেটে। তবে তা সত্ত্বেও আর্থিক অনটন নিত্যদিনের সঙ্গী আন্তর্জাতিক রেকর্ড গড়া এই ক্রিকেটারের। জীবন চালাতে পণ্ডিচেরির একটি সরকারি কলেজে মাল্টি-টাস্কিং স্টাফের কাজ করেন তিনি। তার সঙ্গে খেলার সামগ্রী বিক্রিরও ছোট্ট দোকান রয়েছে সান্থার। তবে এসবের মধ্যেই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সুযোগ পাওয়ার জন্য এতটুকু খামতি নেই অনুশীলনে। 

আরও পড়ুন
ভারতের হয়ে টেস্ট খেলা দ্বিতীয় বাঙালি তিনি, প্রথম ম্যাচেই ৫ উইকেট নিয়ে চ্যালেঞ্জ প্রতিপক্ষকে

বয়সকে হার মানানোর পর এখনও নিজের লক্ষ্যে অবিচল দক্ষিণ ভারতীয় এই ক্রিকেটার। ফর্ম বজায় রেখেই ভারতীয় জাতীয় দলে খেলার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। যদিও নিজেই স্বীকার করেছেন সেই সুযোগ প্রায় নেই বললেই চলে। তবু নিজের নিজের কাছে নিজেকে প্রমাণ করার জন্যই এই লড়াই। আর এই অদম্য মানসিকতার জন্যেই তরুণ ক্রিকেটারদের কাছে নিজের অজান্তেই অনুপ্রেরণা হয়ে উঠেছেন সান্থা মূর্তি...

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More