‘বিজ্ঞান কিছুই জানে না’, আবহাওয়া পরিবর্তনকে নস্যাৎ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের

গত কয়েকদিন ধরেই বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডে বিপর্যস্ত ক্যালিফোর্নিয়ার বনভূমি। ওরাগন, ওয়াশিংটনেও ছড়িয়েছে সেই দাবানলের আঁচ। সংবাদমাধ্যমের প্রথম পাতাতেই উঠে এসেছিল আগুনের হলকায় যুক্তরাষ্ট্রের রক্তলাল আকাশের ভয়ঙ্কর সেই ছবি। যা অন্যতম চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিশ্বের তাবড় পরিবেশবিদদের। তবে বিজ্ঞানকে এক কথায় তুড়ি মেরেই উড়িয়ে দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

“আবহাওয়া পরিবর্তন নয়, জঙ্গলের রক্ষণাবেক্ষণের অভাবের কারণেই এই অগ্নিকাণ্ড। আমার মনে হয় বিজ্ঞানীরা এই কারণের বিষয়ে অবগত নন”, ডোনাল্ড ট্রাম্প এভাবেই ব্যাখ্যা করলেন দাবানলকে। অগ্নিবিধ্বস্ত ক্যালিফোর্নিয়া সফরে ট্রাম্পের এই বক্তব্যই এখন হাস্যরোল তুলছে বিশ্বের বিভিন্ন মহলে।

এখনও অবধি এই অগ্নিকাণ্ডে যুক্তরাষ্ট্রে ছাই হয়ে গেছে ৫০ লক্ষ একর অরণ্য। আগস্টের পর থেকে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৩৬ জন ব্যক্তির। বাধ্য হয়ে বাসস্থান ছেড়ে চলে এসেছে ৫ লক্ষাধিক মানুষ। বন্যপ্রাণ এবং বনজ সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির ব্যাপারে নয় বাদই দেওয়া গেল। কিন্তু এরপরেও ট্রাম্পের এই গা-ছাড়া মনোভাবেই অবাক দুনিয়া।

এর আগে প্যারিসের জলবায়ু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নিয়েছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। চলতি শতকে বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধিকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে বেঁধে ফেলাই ছিল এই চুক্তির মূল উদ্দেশ্য। তাতে বিশ্বের ১৮৭টি দেশই পরিকল্পনাবদ্ধ হয়েছিল শিল্পে পরিবর্তন এনে কার্বন নির্গমন কমিয়ে আনা, এবং সবুজায়নের ব্যাপারে। ভারত এবং চিন প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নির্গমন ৩০ শতাংশ কমিয়ে আনার। তবে উল্টোপথেই হেঁটেছিলেন ট্রাম্প।

আরও পড়ুন
‘শান্তি’র নোবেল পেতে চলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প? জমা পড়ল মনোনয়ন

ক্যালিফোর্নিয়া সফরের সাংবাদিক সম্মেলনে আরও একবার ট্রাম্পের সেই মন্তব্যই যেন প্রতিফলিত হল। নিজেই বাতলে দিলেন দাবানল আয়ত্তে আনার উপায়। পরিবেশবিদদের আশ্বাস দিলেন, “আপনারা দেখুন, এমনিই ঠান্ডা হয়ে যাবে পরিস্থিতি”। এর আগে ২০১৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ার বনবিভাগের কাজ নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন ট্রাম্প। ফিনল্যান্ডের কথা উল্লেখ করে বলেছিলেন, দাবানল আটকানোর জন্য বনভূমি কেটে ফেলা দরকার। 

আমেরিকার আসন্ন নির্বাচনের এখন মূল কেন্দ্রবিন্দুই হয়ে উঠেছে পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতা। ট্রাম্পের এই মন্তব্যের পর বিরোধীপ্রার্থী বিডেন ‘পরিবেশ দাহক’ বলে অভিহিত করেন ট্রাম্পকে। তবে ট্রাম্পের এই মন্তব্যের বিপরীতে গিয়েই অনেক মার্কিন আধিকারিকই জানাচ্ছেন গত ২৫ বছরেই ক্যালিফোর্নিয়ার তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে পরিস্থিতি যে ক্রমশ সংকটজনক হয়ে উঠছে, তাও স্বীকার করে নেন তাঁরা...

আরও পড়ুন
আবার রাজ্যভিত্তিক লকডাউনের পথে যুক্তরাষ্ট্র, স্কুল বন্ধ করায় ক্ষুব্ধ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

Powered by Froala Editor