২ লক্ষাধিক শিশুর যৌন নিগ্রহ গির্জায়! তদন্তে তোলপাড় ফ্রান্স

আজ থেকে ৫০-৬০ বছর আগের কথা। ছোটো ছোটো ছেলেমেয়েদের কাছে গির্জা মানে এমন এক জায়গা যেখানে সবকিছুই পবিত্র। গির্জার বিশপ থেকে শুরু করে অন্য মানুষগুলোও তেমনই পবিত্র। কিন্তু সেই বিশ্বাসে ফাটল ধরতে দেরি হয়নি। যখন ক্যাথলিক স্কুলের অনুষ্ঠানে সেই ছেলেমেয়েগুলোই যৌন নিগ্রহের শিকার হল। আর নিগ্রহ করলেন গির্জার বিশপ বা অন্য কোনো ব্যক্তি। হ্যাঁ, একের পর এক এমনই ঘটনার কথা উঠে এসেছে সাম্প্রতিক তদন্তে। গত ৭০ বছরে অন্তত ২ লক্ষ ১৬ হাজার শিশুকে যৌন নিগ্রহের (Sexual Abuse) অভিযোগ উঠেছে ফ্রান্সের ক্যাথলিক চার্চের (French Catholic Church) বিরুদ্ধে।

ফ্রান্সের গির্জার এমন খবর শুনে হতবাক পোপ ফ্রান্সিস নিজেও। অবশ্য অভিযোগ আজকের নতুন নয়। বছরের পর বছর ধরে অভিযোগের স্তূপ জমে উঠেছে। নিগৃহীতরা নিজেদের মধ্যে গড়ে তুলেছেন একাধিক সংগঠন। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অবশ্য অভিযোগ উঠেছে পুরুষদের দিক থেকে। আর নিগ্রহের সময় তাঁদের বয়স ছিল, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ১৩ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে। একের পর এক অভিযোগের জেরে শেষ পর্যন্ত চার্চ কর্তৃপক্ষের তরফ থেকেই গড়ে তোলা হয় তদন্ত কমিশন। চলতি বছরের শুরুতেই এই নিগৃহীত শিশুদের সুবিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ফ্রান্সের ক্যাথলিক চার্চ।

১৯৫০ সাল থেকে এখনও পর্যন্ত বহু অভিযোগ জমা পড়েছে চার্চের কাছে। তার মধ্যে অন্তত ২ লক্ষ ১৬ হাজার অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে পেরেছে তদন্ত কমিটি। আর অপরাধীর সংখ্যাও প্রায় ৩ হাজার। তবে এর মধ্যে বেশিরভাগ ঘটনাই ঘটেছে ৫০ বছরেরও বেশি সময় আগে। ফলে ফ্রান্সের ফৌজদারি আইন অনুযায়ী অপরাধীদের শাস্তি দেওয়া আর সম্ভব নয়। তবে নিগৃহীতদের জন্য ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ নিজেই। সেইসঙ্গে এও বলা হয়েছে, আর্থিক ক্ষতিপূরণ দিয়ে কখনোই যৌন নির্যাতনের ক্ষত সারিয়ে তোলা সম্ভব নয়। কিন্তু এর মাধ্যমে অন্তত তাঁদের বিরুদ্ধে ঘটে যাওয়া অপরাধ স্বীকার করে নিতে পারে কর্তৃপক্ষ। এই ক্ষতিপূরণ আসলে এক প্রকার ক্ষমা চাওয়া ছাড়া আর কিছু নয়। ফ্রান্সের এই ঘটনায় উদ্বিগ্ন খোদ পোপ ফ্রান্সিস। তাঁর আশঙ্কা, ইউরোপের অন্যান্য দেশেও এমন ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। বর্তমানে এই ধরনের প্রবণতা কিছুটা কমলেও ইতিহাসকে অস্বীকার করার জায়গা নেই। তাই ক্যাথলিক চার্চগুলির জন্য যৌন নিগ্রহকারীদের চরমতম শাস্তিবিধি তৈরি করা হবে বলেও জানিয়েছেন পোপ। এই ঘটনায় যে সার্বিকভাবে ক্যাথলিক ধর্মের ভাবমূর্তিই ক্ষুণ্ণ হল, তা বলাই বাহুল্য।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
দৈনিক ৩৫০ট শিশুর বিরুদ্ধে ঘটেছে আইনি অপরাধ, ২০২০-র পরিসংখ্যান ঘিরে চাঞ্চল্য