মন্দারমণির সমুদ্রতটে ৩৬ ফুট লম্বা তিমির মৃতদেহ, স্থানীয়দের মধ্যে চাঞ্চল্য

সোমবার সকালে হঠাৎ সমুদ্রে ভাসতে দেখা গেল বিশালাকার এক প্রাণীর দেহ। ক্রমে সমুদ্রের স্রোতে তীরে ভেসে এল প্রাণীটি। বোঝা গেল এটি একটি তিমি। দৈর্ঘে প্রায় ৩৬ ফুট, চওড়ায় ১০ ফুট। মাথা থেকে রক্ত বার হচ্ছে তার। লেজেও একাধিক ক্ষতচিহ্ন। স্থানীয়রা উদ্ধারের জন্য ছুটে গেলেও দেহে স্পন্দন পেলেন না কোনো। ততক্ষণে নিথর হয়ে গেছে সে। এই বিশালাকার প্রাণীটিকে ঘিরেই এখন ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। অনেকেই মৃতদেহ ঘিরে ভিড় জমিয়েছেন ছবি, ভিডিও তোলার জন্য।

ঘটনার খবর পেয়েই বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তাঁদের প্রাথমিক ধারণা বড় কোনো জাহাজের ধাক্কায় আহত হয়েছিল প্রাণীটি। তারপর সমুদ্রের স্রোতেই ভেসে আসে তীরে। প্রাণী বিশেষজ্ঞদের ধারণা তিমি পরিবারের হাম্পব্যাক প্রজাতির সদস্য এই প্রাণীটি। তবে বিস্ময়ের ব্যাপার এই ধরণের প্রাণীর বঙ্গোপসাগরে দেখা মেলে না সচরাচর। প্রশান্ত মহাসাগরেই মূলত বসবাস তাদের। কীভাবে এখানে ভেসে এল তাই আশ্চর্য করছে বিজ্ঞানীদের।

জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার বিশেষজ্ঞদের ধারণা, খাদ্যের খোঁজেই বঙ্গপোসাগরে চলে এসেছিল প্রাণীটি। অথবা সমুদ্রের তলদেশে প্লেটের টেকটনিক নড়াচড়ার ফলে প্রায়শই প্রাকৃতিক দুর্ঘটনা ঘটে। যার কারণে ভীত হয়ে এক স্থান থেকে অন্যস্থানে চলে আসে প্রাণীরা। এক্ষেত্রেও সেই আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া চলে না।

কয়েকবছর আগেই ২০১০ সালে এমনই একটি ঘটনায় ৪৫ফুট লম্বা নীলতিমি ভেসে উঠেছিল মন্দারমণিতে। সেটির মৃতদেহ উদ্ধার করে দিঘার জ্যুলজিকাল মিউজিয়ামে রাখা হয়েছে। এই প্রাণীটির দেহ-ও সংরক্ষণ করা হবে বলেই জানাচ্ছেন তাঁরা...

আরও পড়ুন
মানুষের হাতে ভেঙে গিয়েছে তিনটি ডিম, দুঃখে প্রাণত্যাগ মা রাজহাঁসের

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
২৯ বছর পর, বিরল সাদা কুঁজের তিমির দেখা মিলল অস্ট্রেলিয়ায়

More From Author See More

Latest News See More