আন্টার্কটিকার বরফশীতল জলে সাঁতার, উষ্ণায়নের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সাঁতারুর

চারিদিকে বরফের স্তূপ। মাঝখানে কনকনে ঠান্ডা জল। তার মধ্যে দিয়ে একজন মানুষ, খালি গায়ে সাঁতরে যাচ্ছেন। না, লোকটি অসুস্থ নয়, মাথাও খারাপ হয়নি। এটাই তাঁর ‘প্রতিবাদ’। ক্রমাগত জাঁকিয়ে বসা বিশ্ব উষ্ণায়নের বিরুদ্ধেই এমন প্রতিবাদের রাস্তা বেছে নিলেন সাঁতারু লুইস পাঘ।

৫০ বছর বয়সী এই সাঁতারু আন্টার্কটিকায় তাঁর এই সাঁতার শেষ করলেন সম্প্রতি। দীর্ঘ বহুদিন ধরেই এই উষ্ণায়ন ও জলবায়ু পরিবর্তনের ঘটনা বিচলিত করছে তাঁকে। অথচ কিছুতেই থামানো যাচ্ছে না একে। তাই, এর প্রতিবাদ করতে এবং সচেতনতা বাড়াতে আন্টার্কটিকায় সাঁতার কাটার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন লুইস।

একদমই সহজ ছিল না এই কাজ। কনকনে ঠান্ডা জলে প্রতি পদে বিপদ ছিল বছর পঞ্চাশের লুইসের। তিনি নিজেও বলেছেন, এটি তাঁর জীবনের সবচেয়ে ভয়ংকর সাঁতার ছিল। কিন্তু ৩৩ বছরের কঠোর পরিশ্রম ও ট্রেনিংয়ের মধ্য দিয়ে উঠে আসা লুইস এটি সম্পূর্ণ করলেন। ধীরে ধীরে সেখানকার বরফ যে গলছে, সেটাও উল্লেখ করলেন তিনি। বরফ গলে অনেক নতুন লেকও তৈরি হয়েছে দক্ষিণ মেরুতে। যেটা অবশ্যই শঙ্কার।

আন্টার্কটিকার বরফ ঠান্ডা জলে সাঁতার কেটে লুইস পাঘ নিজের মতো করে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। কিন্তু যে ইস্যুতে তাঁর এই অভিযান, সেটি যে ক্রমশ বেড়েই চলেছে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। পৃথিবীর তাপমাত্রা ক্রমশ বেড়ে যাওয়ায় আখেরে বিপদে পড়ছি আমরাই। দক্ষিণ মেরুতেও বরফ গলছে। সেই প্রসঙ্গও উঠে আসে লুইসের কথায়। আমরা সচেতন না হলে বড় রকম বিপদ অপেক্ষা করছে আমাদের জন্য, সেটাও জানালেন তিনি।

More From Author See More