সংশোধনের পথে প্রাণী সুরক্ষা আইন, পশু নির্যাতনে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা

কখনো কুকুর, বিড়ালকে বাইকের পেছনে বেঁধে টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে রাস্তা দিয়ে। আবার কখনো চিতাবাঘ হত্যা করে তাঁর ত্বক ছাড়িয়ে নিয়ে উল্লাসে মাতছে জনতা। বাদ পড়ছে না হাতির মতো বৃহৎ প্রাণীও— খাবারের মধ্যে পটকা রাখার কারণে হাতির মৃত্যুও সামনে এসেছিল গত বছর। চারিদিকেই যেন ক্রমশ বেড়ে চলেছে অবলা প্রাণীদের ওপর নিষ্ঠুরতার মাত্রা। এবার তার বাড়বাড়ন্ত আটকাতেই বদলাতে চলেছে প্রাণী সুরক্ষা আইন। এবার প্রাণী হিংসার ঘটনায় কঠোর করা হচ্ছে শাস্তির মাত্রা।

মৎস্য, পশুপালন ও ডেয়ারি মন্ত্রী গিরিরাজ সিং গতকাল জানান, প্রাণী সুরক্ষা আইনের সংশোধনী খসড়া প্রস্তুতির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। শুক্রবার পার্লামেন্টারি সেশনে এই আইন সংশোধন করার প্রস্তাব স্বীকৃতি পায়। গত বছর কেরালার হাতি হত্যার নৃশংসতা সামনে আসার পরই রাজ্যসভা সাংসদ রাজীব চন্দ্রশেখর প্রস্তাব জানিয়েছিলেন আইন সংশোধনের। তবে পর্যালোচনার পর্যায়েই আটকে ছিল তা। গত মঙ্গলবার মুজফফরপুর সাংসদ সঞ্জীব কুমার বালিয়ান লিখিত আবেদনপত্র জমা দেওয়ার পর এক সপ্তাহের মধ্যেই শেষ পর্যন্ত শুরু হল প্রক্রিয়া। 

বর্তমানে যে পশু সুরক্ষা আইন মেনেই বিচার করা হয়, তা প্রবর্তিত হয়েছিল ১৯৬০ সালে। তৎকালীন সময়ে পশু নৃশংসতার প্রেক্ষিতে জরিমানা ধার্য করা হয়েছিল ৫০ টাকা। যা আজও অপরিবর্তিত রয়েছে। ৬০ বছর পেরিয়ে এসে বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে যা ন্যূনতম। এবং এই যৎসামান্য শাস্তির পরিমাণই যেন বাড়িয়ে তুলেছে মানুষের হিংসার প্রবৃত্তিকে। পাশাপাশি এই আইনে অপরাধের মাত্রার নিরিখে শাস্তির কোনো প্রকারভেদও চিহ্নিত করা নেই আলাদাভাবে।

সংশোধিত আইনে নিষ্ঠুরতার মাত্রার ওপরে নির্ভর করেই তৈরি করা হচ্ছে জরিমানার পরিমাণ। যা ৭৫০ টাকা থেকে ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বিন্যস্ত তিনটি স্তরে। নিষ্ঠুরতার জেরে কোনো প্রাণীর মৃত্যু হলে ৫ বছরের কারাদণ্ডের বিধানও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে সংশোধনে। মারধরের পাশাপাশি পোষ্যকে অনাহারে রাখা, অতিরিক্ত ভারবহন করানো এবং ওভাররাইডিংকেও শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসাবে চিহ্নিত করা হচ্ছে নতুন আইনে।

খসড়া নির্মাণ প্রক্রিয়া শেষ হলে সরকারি মহলের অভিমত নিয়েই প্রবর্তিত হবে নতুন আইন। তা যাতে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়, তা নিয়েও পূর্ব-পরিকল্পনা করছেন সাংসদ ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিত্বরা। বিগত কয়েক বছর ধরেই প্রাণী অধিকারের সক্রিয় কর্মী এবং বিভিন্ন সংস্থা সাবি জানিয়ে আসছে আইনি সংশোধনের। এবার বিচার পেল দীর্ঘদিনের সেই আন্দোলন। শাস্তির পরিমাণ বা জরিমানা বৃদ্ধি পেলে প্রাণী নির্যাতনের সময় অপরাধীরা এবার থেকে পুনর্বিবেচনা করবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা…

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
মাত্র দশ বছর বয়সেই আস্ত হাতি মেরেছিলেন চন্দনদস্যু বীরাপ্পন!

More From Author See More

Latest News See More