৫৫০০ মাইল ভ্রমণ শেষে কবরের মুখে, কী এই টোটেম লাটামাট?

/৮

একটি পূর্ণাঙ্গ গাছ খোদাই করে তৈরি টোটেম – টোটেম লাটামাট। মেক্সিকো থেকে দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে সে এসে পৌঁছেছিল দক্ষিণ স্কটল্যান্ড পর্যন্ত। মাঝে ব্রিটেনের নানা অঞ্চল ঘুরে এসেছে টোটেম লাটামাট। গ্লাসগো শহরে কপ-২৬ সম্মেলনেও মেক্সিকোর উপজাতিদের বার্তা পৌঁছে দিয়েছে। ৫৫০০ মাইল পথ অতিক্রম করার পর অবশেষে মাটিতে মিশিয়ে দেওয়া হবে এই অদ্ভুত শিল্পকর্মটি, এমনটাই জানিয়েছে শিল্প সংস্থা ‘বর্ডার ক্রসিংস’। কিন্তু কী এই টোটেম লাটামাট?

/৮

বর্তমানে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সবচেয়ে বেশি টের পাওয়া যাচ্ছে উপজাতি অধ্যুষিত অঞ্চলগুলিতে। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য দায়ী নাগরিক মানুষ। এই পরিস্থিতিতে উপজাতিদের সুরক্ষা ও সংরক্ষণের পাশাপাশি তাদের শিল্প ও সংস্কৃতি নিয়েও উপযুক্ত সচেতনতা গড়ে তোলা প্রয়োজন। এই ভাবনা থেকেই মেক্সিকোর টোটোনাক উপজাতির হারিয়ে যেতে বসা শিল্পকর্মকে তুলে ধরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ‘বর্ডার ক্রসিংস’ সংস্থার সদস্যরা।

/৮

জঙ্গলের মৃত গাছের কাণ্ডে খোদাই করে নানা মূর্তি গড়ে তোলা টোটোনাক উপজাতির বহু প্রাচীন রীতি। তার বৈচিত্র ও রূপ আধুনিক শিল্পীদেরও মুগ্ধ করে। তবে সভ্য জগতের অনেকেই এই শিল্পরীতির সঙ্গে পরিচিত নন। তাই স্বাভাবিকভাবেই ইউরোপের মানুষ সামনে থেকে এমন টোটেম দেখে অবাক হয়েছেন। প্রতিটি জায়গায় দর্শকরা ভিড় জমিয়েছেন, নানা রকম অনুষ্ঠানের মাধ্যমে স্বাগত জানিয়েছেন টোটেম লাটামাটকে।

/৮

বর্ডার ক্রসিংস-এর পক্ষ থেকে চুক্তি ভিত্তিতে এই টোটেমটি তৈরি করেছেন টোটোনাক শিল্পী মিস্টার টিবার্সিও। কয়েকমাস আগেই এক বিধ্বংসী হ্যারিকেনে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় তাঁর ঘর।

/৮

সাম্প্রতিক সময়ে একের পর এক প্রাকৃতিক দুর্যোগে উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষরা টের পাচ্ছেন জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব। আর তার সঙ্গে দেখতে পাচ্ছেন বহু উদ্ভিদ ও প্রাণী হারিয়ে যাচ্ছে জঙ্গল থেকে। সেই হারিয়ে যাওয়া বাস্তুতন্ত্রের সঙ্গে মানুষের সম্পর্কের ছবিই তুলে ধরেছেন টিবার্সিও।

/৮

কপ-২৬ সম্মেলন ছাড়াও লন্ডনের সিসউইক হাউস, মিল্টন কেনেসের স্টেশন স্কোয়ার, হেক্সহ্যাম অ্যাবে, ম্যানচেস্টার ইউনিভার্সিটি এবং অক্সফোর্ডশায়ারে প্রদর্শিত হয়েছে টোটেম লাটামাট। প্রতিটা জায়গাতেই দর্শকদের মধ্যে টোটোনাক উপজাতির জীবনযাত্রা নিয়ে সচেতনতা তৈরির কাজ বেশ ভালোভাবেই হয়েছে বলে জানিয়েছেন বর্ডার ক্রসিংস-এর সদস্যরা।

/৮

ইতিমধ্যে টোটেম লাটামাটকে সমাধিস্থ করার পরিকল্পনাও নেওয়া হয়ে গিয়েছে। লন্ডনে সিসউইক হাউসের কাছেই টোটেমটি সমাধিস্থ করা হবে। অবশ্য এমন একটি শিল্পকর্মকে নষ্ট করে ফেলার সিদ্ধান্তে প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকেই। অপরদিকে বর্ডার ক্রসিংস সংস্থার পক্ষ থেকেও যুক্তি দেওয়া হয়েছে।

/৮

নাগরিক শিল্পীদের মতো উপজাতিরা অর্থ উপার্জনের জন্য নিজেদের শিল্পকে সংরক্ষণ করে রাখেন না। শিল্পও তাঁদের কাছে জীবন্ত একটি মাধ্যম। তার যেমন জন্ম আছে, তেমনই মৃত্যুও আছে। উপজাতিদের এই সংস্কৃতির কথা তুলে ধরতেই টোটেমটি সমাধিস্থ করা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থা। তবে তার আগে এর ৫৫০০ মাইলের যাত্রাপথের ওপর একটি তথ্যচিত্র তৈরির কাজ চলছে। টোটেমটি না থাকলেও এই তথ্যচিত্রটি থেকে যাবে।

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More