চলে গেলেন সৌমিত্র-জায়া দীপা চট্টোপাধ্যায়

মাত্র মাস চারেক আগে প্রয়াত হয়েছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এবার সেই একই পথে পাড়ি দিলেন স্ত্রী দীপা। শনিবার রাতে মৃত্যু হল সৌমিত্র-পত্নী দীপা চট্টোপাধ্যায়ের। অভিনেতার মৃত্যুর শোক কাটিয়ে ওঠার আগেই আবারও এক বড়ো আঘাত চলচ্চিত্র জগত তথা সৌমিত্র পরিবারে। জানা গিয়েছে, কিডনির অসুখের কারণে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ছিলেন দীপা চট্টোপাধ্যায়। এছাড়াও ডায়াবেটিসের সমস্যা ছিল। শনিবার রাতে শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালে কিডনি নিষ্ক্রিয় হয়েই মৃত্যু হয় দীপা চট্টোপাধ্যায়ের।

১৯৬০ সালে একসঙ্গে পথচলা শুরু করেন সৌমিত্র-দীপা। একদিকে বাংলা সিনেমা জগতের তরুণ প্রতিভাবান অভিনেতা সৌমিত্র আর অন্যদিকে তুখোড় ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় দীপা। দুজনের জগত আলাদা হয়েও মিলেমিশে গিয়েছিল। দীপা চট্টোপাধ্যায়কেও পরে ‘বিলম্বিত লয়’ বা ‘গাছ’-এর মতো সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে। এক কন্যা ও এক পুত্রের সাজানো সংসার। সেই ঘর শূন্য করে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় চলে গিয়েছেন গত নভেম্বরেই। ৬০ বছরের দাম্পত্যে ভাঙন ধরিয়েছিল করোনা ভাইরাস।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর পর বেশ কিছু স্মরণসভাতেও দেখা গিয়েছে দীপা চট্টোপাধ্যায়কে। তবে তখন থেকেই আর বেঁচে থাকার উৎসাহ পেতেন না দীপা, এমনটাই জানিয়েছেন কন্যা পৌলমী বসু। জীবনের প্রতি এই অনীহাই কি তাহলে শেষ পর্যন্ত মৃত্যু ডেকে আনল? চারমাস আগের বেদনাকে বুকে চেপে রেখেই আবারও শোকে ভাসছে পৌলমী-সৌগত। আর সেইসঙ্গে শোকাকূল বাংলা সিনেমার জগৎ এবং চলচ্চিত্রপ্রিয় অসংখ্য মানুষ।

Powered by Froala Editor

More From Author See More