বিরল প্রজাতির কাছিম সংরক্ষণে অ্যাপ ওড়িশা সরকারের

জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে হারিয়ে যাচ্ছে নানা প্রজাতি। অবশ্য তাদের সংরক্ষণের নানা উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে এর মধ্যে। তবে ওড়িশা সরকারের সাম্প্রতিক উদ্যোগে অবাক সকলেই। মূলত অলিভ রিডলে কাছিম (Olive Ridley Turtles) সংরক্ষণের কথা মাথায় রেখেই মৎস্যজীবীদের জন্য বিশেষ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে এল ওড়িশা সরকার। এর ফলে মৎস্যজীবীরা বুঝতে পারবেন তাঁরা হঠাৎ কোনো সংরক্ষিত অঞ্চলে প্রবেশ করে ফেলেছেন কিনা। সবচেয়ে বড়ো কথা, এই অ্যাপ্লিকেশনের জন্য প্রয়োজন নেই কোনো ইন্টারনেট কানেকশনেরও। ফলে গভীর সমুদ্রে যেখানেই তাঁরা নিজেদের অবস্থান জানতে চাইবেন, সঙ্গে সঙ্গে উত্তর পাবেন ‘ফিশার ফ্রেন্ড’ (Fisher Friend) মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে।

জিপিএস প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে এই ‘ফিশার ফ্রেন্ড’ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছে ওড়িশা সরকার। সাধারণত যে কোনো ধরনের স্মার্টফোনেই জিপিএস যোগাযোগের ব্যবস্থা থাকে। তবে তা কাজে লাগানোর জন্য প্রয়োজন হয় ইন্টারনেট কানেকশনের। অবশ্য পর্বতারোহী বা অন্যান্য অভিযাত্রীদের জন্য এর আগেই এমন মোবাইল অ্যাপ্লকেশন তৈরি করা হয়েছে, যাতে ইন্টারনেট কানেকশন ছাড়াই অবস্থান নির্ণয়ের কাজে লাগানো যায়। এবার সেই প্রযুক্তিকেই সরাসরি মৎস্যজীবীদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিল ওড়িশা সরকার। শনিবার রাজ্যের মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী ডঃ অরুণ কুমার সাহু এবং অন্যান্য পদস্থ কর্তাদের উপস্থিতিতে এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটির উদ্বোধন করা হয়।

আপাতত ২২ হাজার মৎস্যজীবীর হাতে এই মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনটি প্রাথমিকভাবে তুলে দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে দেড় লক্ষ পর্যন্ত মানুষ এর সুবিধা পাবেন বলে আশা করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যে অলিভ রিডলে কাছিম সংরক্ষণের বিষয়ে ওড়িশা সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। পূর্ববর্তী সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ২০১৯-২০ সালে যেখানে ওড়িশার উপকূলে ৬৩২০টি অলিভ রিডলে কাছিম দেখা গিয়েছে, ২০২০-২১ সালে সংখ্যাটা নেমে এসেছে ২৫৭৫-এ। এই কারণেই দেবী ও গহিরমাথা নদীর মোহনাকে সংরক্ষিত অঞ্চল হিসাবে ঘোষণা করেছে সরকার। পাশাপাশি গহিরমাথা নদীর মোহনায় একটি জলজ অভয়ারণ্যও গড়ে তোলা হয়েছে। এই সমস্ত অঞ্চলেই মৎস্যজীবীদের প্রবেশ নিষেধ। কিন্তু সমুদ্রের মধ্যে সীমানা নির্ধারণ তো সহজ নয়। তাই এই অভিনব মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে এল সরকার। এর ফলে বিপন্ন জলজ প্রাণীদের বাঁচানো যেমন সহজ হবে, তেমনই মৎস্যজীবীরাও সমুদ্রে পথ হারানোর আশঙ্কা থেকে রেহাই পাবেন অনেকটা।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
কাছিম সংরক্ষণে দিশা দেখিয়ে আন্তর্জাতিক পুরস্কার ভারতীয় বিজ্ঞানীর

More From Author See More

Latest News See More