অভিনয়জগতে আসা আকস্মিকভাবেই, বিজ্ঞাপন নিয়েই কাজ করতে চেয়েছিলেন মেনন

/১৫

মহামারীর একদম শুরুর দিক সেটা। গত বছর মার্চ মাসে প্রকাশিত হয়েছে স্পেশাল অপস (Special Ops)। ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হটস্টারের এই ওয়েবসিরিজ রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছিল ইন্টারনেট দুনিয়ায়। টান টান গল্পের পাশাপাশি দর্শকদের নজর কেড়েছিল কে কে মেনন (Kay Kay Menon) অভিনীত গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র ‘হিম্মত সিং’।

/১৫

তার প্রায় দেড় বছর পেরিয়ে যাওয়ার পর গতকাল হটস্টারে মুক্তি পেল ‘স্পেশাল অপস’-এর দ্বিতীয় সিজন। অবশ্য সিরিজের নাম ‘স্পেশাল অপস ১.৫’। সময়ের ফ্ল্যাশব্যাকে গিয়ে ইন্টেলিজেন্স এজেন্ট হিম্মত সিং-এর গল্প শোনাবে এবারের সিরিজ। এবারেও মুখ্য অভিনেতা কে কে মেননই। তাঁকে নিয়ে দর্শকদের মাদকতাতেও ভাঁটা নেই কোনো।

/১৫

তবে আশ্চর্যের বিষয় হল, দক্ষ অভিনেতা হওয়া সত্ত্বেও ছোটো থেকে চলচ্চিত্রের সঙ্গে কোনোদিনই ‘ঘনিষ্ঠ’ সম্পর্ক ছিল না তাঁর। এমনকি অভিনয়ের জগতে তাঁর ঢুকে পড়া একপ্রকার আকস্মিকভাবেই।

/১৫

১৯৬৬ সালে কেরলের তিরুবনন্তপুরমে জন্ম মেননের। তবে বাবার কর্মসূত্রের শৈশবেই মহারাষ্ট্রে চলে আসেন তিনি। কৈশোর কেটেছে পুনেতে। তারপর পড়াশোনার জন্য পাড়ি দেওয়া বাণিজ্যনগরী মুম্বাইয়ে।

/১৫

মেননের ব্যক্তিগত জীবনকে বর্ণময় বললেও বোধ হয় কম বলা হয়। বলতে গেলে বিজ্ঞান-বাণিজ্য-কলা— তিন জগতেই ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বিরাজ করেছেন মেনন। স্কুলের গণ্ডি পেরনোর পর স্নাতকতার বিষয় হিসাবে তিনি বেছে নিয়েছিলেন পদার্থবিদ্যাকে। বোম্বে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেশ ভালো নম্বর নিয়েই আদায় করেছিলেন স্নাতকের ডিগ্রি।

/১৫

কিন্তু তারপরেই বদলে যায় তাঁর লক্ষ। আজীবন বিজ্ঞানের ছাত্র হয়েও স্নাতকোত্তর স্তরে ভর্তি হন বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন নিয়ে। উদ্দেশ্য ছিল, কর্পোরেট জগতে ঢুকে পড়া। সফলতার সঙ্গেই সেই হার্ডল পেরিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। কাজ করেছিলেন হন্ডা, মার্লবোরো, কাইনেটিকের মতো বহুজাতিক সংস্থায়।

/১৫

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার বাণিজ্যিক পরিকাঠামোর ভার সামলাতে গিয়ে তাঁর নতুন করে আকর্ষণ জন্মায় বিজ্ঞাপন বিভাগে। একরকম নেশার মতোই তাঁকে সেসময় ঘিরে ধরেছিল বিজ্ঞাপনের ভূত। বিজ্ঞাপনের কাজ করতে গিয়েই ধীরে ধীরে থিয়েটার অভিনেতাদের সঙ্গে আলাপ জমে মেননের। অবশ্য অভিনয় জগতে নামা তারও পরে। নব্বইয়ের দশকে।

/১৫

মুম্বাইয়ে তখন বিভিন্ন থিয়েটার গ্রুপের ম্যানেজমেন্ট এবং বিজ্ঞাপনের কাজ সামলাচ্ছেন মেনন। সেই সময় একটি থিয়েটার প্রোডাকশনের কাজ করতে গিয়ে তাঁর সঙ্গে আলাপ হয় বাঙালি অভিনেত্রী নিবেদিতা ভট্টাচার্যের। সেই জল যে প্রেম পর্যন্ত গড়াবে, তা নিজেও জানতেন না মেনন।

/১৫

সে-সময় সম্পর্ক, ভালোবাসাই যেন বদলে দিয়েছিল তাঁর জীবন। নিবেদিতার হাত ধরেই প্রথম থিয়েটার মঞ্চে আত্মপ্রকাশ মেননের। তবে কোনোরকম অভিজ্ঞতা ছাড়াই তাঁর অভিনয়ের সাবলীলতা দেখে মুগ্ধ হন খোদ পরিচালক। জনপ্রিয় নাটক ‘মহাত্মা বনাম গান্ধী’-র অন্যতম একটি চরিত্রের ভার পড়ে তাঁর কাঁধে।

১০/১৫

সেই নাটকের কিংবদন্তি নাসিরুদ্দিন শাহের বিপরীতেই মঞ্চাভিনয় করেছিলেন মেনন। কাজটা ঠিক কতটা চ্যালেঞ্জিং ছিল, তা নতুন করে বলার প্রয়োজন পড়ে না। না, পরিচালককে হতাশ করেননি তিনি। বরং, তাঁর অভিনয় রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছিল থিয়েটারপ্রেমীদের মধ্যে।

১১/১৫

তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। মঞ্চ থেকে সোজা হাজির হয়েছিলেন টেলিভিশনের পর্দায়। বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় সিরিয়ালে অভিনয়ের পর এসেছিল টেলিফিল্মে আত্মপ্রকাশের সুযোগ। ‘জেব্রা-২’ সিনেমা দিয়েই মেননের আত্মপ্রকাশ সিনে-দুনিয়ায়। তারপর ২০০১ সালে অভিনয় জনপ্রিয় ‘প্রধানমন্ত্রী’ টেলিফিল্মে।

১২/১৫

সেই সাফল্যই তাঁকে সুযোগ করে দিয়েছিল বড়ো পর্দায় অভিনয়ের। ‘মুম্বাই মেরি জান’, ‘দ্রোণা’, ‘লাইফ ইন আ মেট্রো’, ‘গুলাল’ থেকে শুরু করে ‘গাজি অ্যাটাক’, ‘হায়দার’-এর মতো চলচ্চিত্রে নিজের জাত চিনিয়েছেন মেনন। নায়ক থেকে শুরু করে খলনায়ক, পার্শ্বচরিত্র— মেনন নিজেকে মেলে ধরেছেন সমস্ত রকম ভূমিকাতেই।

১৩/১৫

বছর দুয়েক আগে মেনন পা দেন ওটিটি প্ল্যাটফর্মে। নেটফ্লিক্সের ‘পেনাল্টি’ সিনেমায় দেখতে পাওয়া যায় তাঁকে। তারপরই ‘স্পেশাল অপস’। বলার অপেক্ষা থাকে না, সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় ছিল দুটি ক্ষেত্রেই। কিছুদিন আগে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায় নেটফ্লিক্স সিরিজ ‘রে’-তেও দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

১৪/১৫

অনবদ্য অভিনয়ের জন্য একাধিক পুরস্কারও ঝুলিতে পুরেছেন মেনন। ২০১৪ সালে ‘হায়দার’ সিনেমার জন্য জোটে আইআইএফএ সম্মাননা। তবে আরও বড়ো চমক আসে চলতি বছরের শুরুতে। ভারতের চলচ্চিত্র জগতের সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘দাদা সাহেব ফালকে’-র পালক চড়ে মেননের মুকুটে।

১৫/১৫

চলতি সময়ে, থিয়েটারের জগৎ থেকে উঠে আসা বলিউডি অভিনেতাদের মধ্যে প্রথম সারিতেই রয়েছেন মেনন। আর এই বহুমুখী অভিনয় দক্ষতাই তাঁর সবথেকে বড়ো হাতিয়ার। হলফ করে বলা যায়, দর্শকমহলে তাঁর অভিনয়ের মাদকতায় ভর করে ‘স্পেশাল অপস ১.৫’ পূর্ববর্তী সিজনের রেকর্ডকেও ছাড়িয়ে যাবে।

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More