‘আইন, সমাজ সমলিঙ্গ বিবাহকে স্বীকৃতি দেয় না’, মন্তব্য কেন্দ্রের

সমলিঙ্গ বিবাহকেও হিন্দু বিবাহ আইনের (১৯৯৫) আওতায় আনা হোক আর্জি জানিয়েই দিল্লি হাইকোর্টে পিটিশন জমা দিয়েছিলেন চার ব্যক্তি। গতকাল সোমবার এই মামলার শুনানিতেই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা। আইন, সমাজ এবং মূল্যবোধ সমলিঙ্গ বিবাহকে স্বীকৃতি দেয় না বলেই দাবি তুললেন তিনি।

তবে এখানেই থেমে থাকেননি তুষার মেহতা। তিনি জানান, ৩৭৭ ধারা উঠিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্টের রায়, সমকামীদের পরিচালিত করছে এই ভুল পথে। পাশাপাশি তিনি উল্লেখ করেন হিন্দু মতে এই বিবাহ নিষিদ্ধ এবং তা হিন্দু সংস্কৃতিকেই এক প্রকার ক্ষুণ্ণ করে। সলিসিটর জেনারেলের এহেন মন্তব্য ঘিরেই শুরু হয়েছে জল্পনা।

এলজিবিটি অধিকার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে লড়াই করে যাওয়া অলাভজনক সংস্থা প্রান্তকথার কর্মকর্তা বাপ্পাদিত্য মুখোপাধ্যায় এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে জানান, “পার্লামেন্টের কাছে আমাদের কোনো এক্সপেক্টেশন নেই। কোনো রাজনৈতিক দল যে এই বিষয়টিকে নিয়ে ইতিবাচক কোনো পদক্ষেপ নেবে, এমন ঘটনা কোনোদিনই হয়নি। আগের সরকারের ক্ষেত্রে ২০০৯ সালে সুযোগ থাকলেও তাঁরা ৩৭৭ রদ করেননি। পরবর্তীকালে ৩৭৭ বন্ধ হওয়া সরকারের ভূমিকা নেই বললেই চলে। সম্পূর্ণ লড়াইয়ের মাধ্যমেই এই জয়। এবং সুপ্রিম কোর্টের দায়িত্ব মানুষের সাংবিধানিক অধিকার যাতে বিঘ্নিত না হয় তা দেখা। সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তে তা প্রতিফলিত হয়েছিল। তাই সলিসিটর জেনারেলের মন্তব্যে একেবারেই ভাবিত নই আমরা। বরং আমরা খুশি ২০১৮-এর সাফল্যের মাত্র দু’বছরের মধ্যেই নতুন উদ্যোমে অধিকার চেয়ে নেওয়ার এই লড়াইটা আবার শুরু হয়েছে”।

দিল্লি উচ্চ আদালতের বিচারক ডিএন প্যাটেল এবং প্রতীক জালান জানান, এই আবেদন মুক্তমনা হয়ে ভাবতে হবে। ভারতের বাইরে সর্বত্রই সমলিঙ্গ মানসিকতা সাদরে গৃহীত হয়েছে। আইনের বাইরে সমাজের এই অগ্রগতিকে আটকে রাখা কোনোভাবেই যুক্তিযুক্ত নয় বলেই জানিয়েছেন তাঁরা। অন্যদিকে সমলিঙ্গ বিবাহে একজনকে স্বামী এবং অন্যজনকে স্ত্রী হিসাবে বলার মধ্যেও কোনো বাধ্যবাধকতা থাকা উচিত নয়।

আরও পড়ুন
‘হিউম্যান কম্পিউটার’, বই লিখেছেন সমকামী সম্পর্ক নিয়েও; শকুন্তলা দেবীর জীবন এবার পর্দায়

অভিজিৎ আইয়ার-সহ আরও তিন আবেদনকারীর দাবি ছিল সমলিঙ্গ বিবাহের আইনি বৈধতা না থাকায় স্বীকৃতি থাকছে না। পাশাপাশিই বিবাহের ক্ষেত্রেও আসছে নানান সামাজিক বাধা। ফলে সমলিঙ্গ সম্পর্কের বৈধতা থাকলেও সেই সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন
ভারত তথা বিশ্বের ‘প্রথম’ সমকামী যুবরাজ মানবেন্দ্র, রাজপরিবারের বাধা ভেঙে প্রকাশ্যে এনেছেন পরিচয়ও

আবেদনকারীদের দাবি অনুযায়ী বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলেই জানান বিচারক প্যাটেল এবং জালানের বেঞ্চ। সমলিঙ্গ বিবাহে রেজিস্ট্রেশন করতে সমস্যা তৈরি হচ্ছে কেন, সে বিষয়েও নজর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। কার্যত কেন্দ্রীয় সরকারের আইনজীবীর মতামতকে নস্যাৎ করে দিয়েই প্রাথমিক পদক্ষেপ নিয়েছেন উচ্চ আদালতের বিচারপতিরা। সোমবার মামলাটির শুনানি স্থগিত রাখা হয়। পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য হয়েছে অক্টোবর মাসে...

আরও পড়ুন
মধ্য আমেরিকার প্রথম সমলিঙ্গ বিবাহ কোস্টারিকায়, সাক্ষী রইল গোটা দেশ

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More