অটোর মধ্যেই আস্ত বাগান, মনে পড়ায় কলকাতার ‘গ্রিন ট্যাক্সি’

অটোর মধ্যেই আস্ত একটি বাগান। ছোটো ছোটো টবে সেখানে সার দিয়ে বসানো হয়েছে রকমারি গাছ। লতা থেকে শুরু করে ছোটো গুল্ম, বাহারে পাতা— রয়েছে সবকিছুই। অন্ধ্রপ্রদেশের তিরুপতিতে (Tirupati) গেলেই দেখা মিলবে এই অভিনব তিন চাকার যানের (Green Auto)। বৃক্ষরোপণ এবং পরিবেশ সংরক্ষণের বার্তা দিতে এমনই অভিনব উদ্যোগ নিয়েছেন তিরুপতি শহরের কেসিনেনি গুন্টার বাসিন্দা কোমপালা বাবু (Kompala Babu)।

ব্যক্তিগত জীবনে নিজেও একজন প্রকৃতিপ্রেমী ৫৮ বছর বয়সী অটোচালক। আশৈশব তিনি কাজ করেছেন পরিবেশকর্মী হিসাবে। ছাত্রাবস্থায় বেশ সক্রিয়ভাবেই তিনি অংশ নিতেন শহরের বিভিন্ন বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিগুলিতে। পরবর্তীতে উপার্জনের তাগিদেই ছাড়তে হয়েছিল সেই পথ। তবে প্রকৃতিপ্রেমে ভাঁটা পড়েনি এতটুকু। নিজের বাড়িতেও রয়েছে আস্ত বাগান। 

সাম্প্রতিক সময়ে মাত্রাতিরিক্ত দূষণ এবং চারিদিকে বৃক্ষচ্ছেদনের ঘটনাই যেন আরও বেশি করে নাড়া দেয় কোমপালাকে। তাই বছর দুয়েক আগে জনসাধারণকে সচেতন করার দায়িত্ব নিজের কাঁধেই তুলে নেন তিনি। নিজের অটোকে বদলে ফেলেন আস্ত বাগানে। আর তাঁর এই উদ্যোগ যে ইতিমধ্যেই বেশ নজর কেড়েছে নগরবাসীর। ফলত, তাঁর উদ্দেশ্য যে সফল, তা নিয়ে সন্দেহ নেই কোনো। 

তবে এই জীবিকায় কোমপালা রয়েছেন মাত্র ১০ বছর। তার আগে ডেয়ারিজাত পণ্য সরবরাহ করতেন তিনি। ছিল নিজের ব্যবসা। ২০১১ সালে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে কোমপালার। সেসময় চিকিৎসার জন্যই ব্যবসা হাতবদল করতে বাধ্য হন তিনি। পরবর্তীতে সুস্থতায় ফেরার পর অটোচালনাকেই বেছে নেন পেশা হিসাবে। তবে যানবাহনের কার্বন নির্গমন চিরকালই ভাবিয়েছে তাঁকে। বর্তমানে, কোমপালা নিজেই যেন সেই সমস্যার সমাধানের পথ দেখাচ্ছেন বাকিদের। বিশ্বাস, তাঁর এই উদ্যোগ অন্তত তাঁর অটোর জন্য বৃদ্ধি পাওয়া কার্বন ফুটপ্রিন্টকে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে। পাশাপাশি তিনি এও মনে করেন, গাছের উপস্থিতি মানসিক দিক থেকেও তাজা রাখে যাত্রীদের। 

আরও পড়ুন
কলকাতার একমাত্র ‘গ্রিন ট্যাক্সি’ তাঁরই, লকডাউনে অসুস্থদের পাশে ধনঞ্জয়

এর আগে খাস কলকাতাতেও নজরে এসেছিল এমনই দৃশ্য। বছর আটেক আগে হলুদ ট্যাক্সির মাথায় ছোট্ট বাগান বানিয়ে নজির গড়েছিলেন কলকাতার ট্যাক্সিচালক ধনঞ্জয় চক্রবর্তী ওরফে বাপিদা। তাঁর ‘সবুজরথ’-এ উঠলেই এখনও যাত্রীদের হাতে ছোট্ট লিফলেট ধরিয়ে দেন তিনি। তাতে ছাপানো পরিবেশ সচেতনতামূলক ছড়া। কোমপালার উদ্যোগ যেন আরও একবার মনে করিয়ে দিল ধনঞ্জয়বাবুর কথা। সারা ভারত জুড়ে এরকম অসংখ্য সবুজায়নের উদ্যোগই যেন ভরসা জাগাচ্ছে আমাদের। আশ্বাস দিচ্ছে দূষণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের…

আরও পড়ুন
ফরাসি কোম্পানির গাড়ি থেকে হলুদ অ্যাম্বাসেডর – ১১১ বছর পেরিয়েও উজ্জ্বল কলকাতার ট্যাক্সি

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More