৪২ হাজার বছর পর প্রাগৈতিহাসিক কৃমির ঘুম ভাঙালেন বিজ্ঞানীরা

ঘুম প্রত্যেক জীবের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু বেশিক্ষণ ঘুম হলে অনেক রকমের সমস্যাই হতে পারে। বেশিক্ষণ মানে আর কতক্ষণ? ঘণ্টার হিসাবেই তার নাগাল পাওয়া যায়। কিন্তু যদি এমন কোনো প্রাণীর কথা বলা হয়, যা ঘুমিয়ে ছিল একটানা ৪২ হাজার বছর! অবাক লাগলেও সত্যি, সম্প্রতি রাশিয়ার সাইবেরিয়া অঞ্চল থেকে এমনই এক প্রাগৈতিহাসিক কৃমির সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। দীর্ঘ চেষ্টার পর তার ঘুম ভাঙাতেও সফল হয়েছেন তাঁরা।

সাইবেরিয়ার উত্তরে বিস্তীর্ণ অঞ্চল সারা বছর তুষারে আবৃত থাকে। হয়তো কয়েক সহস্রাব্দ সূর্যের আলো পৌঁছয়নি মাটির নিচে, এই আশা থেকে ২০১৮ সালে বেশ কয়েকটি জায়গার মাটির নমুনা সংগ্রহ করেছিলেন মস্কো শহরের প্রাণী বিশেষজ্ঞরা। এর মধ্যে অ্যালাজিয়া নদী তীরবর্তী অঞ্চলের মাটি থেকে বেশ কিছু কৃমির নমুনা সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছিলেন তাঁরা। তাদের প্রতিটির বয়স ১০ হাজার বছরের বেশি। ডকলেডি বায়োলিজিক্যাল সায়েন্সেস পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল সেই রিপোর্ট।

এরপর দীর্ঘ ৩ বছর ধরে বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করেছেন ঘুমন্ত কৃমিদের ঘুম ভাঙাতে। অবশেষে মাত্র দুটি প্রাণীর ঘুম ভাঙাতে সফল হয়েছেন তাঁরা। কারেন্ট বায়োলজি পত্রিকার সাম্প্রতিক সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছে সেই খবর। তাদের মধ্যে সবচেয়ে পুরনো কৃমিটির বয়স ৪২ হাজার বছর। অন্যটির বয়স ২৪,০০০ বছর। এতদিন ধরে বন্ধ হয়ে ছিল তাদের সমস্ত শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়া। অবশেষে পরীক্ষাগারে নতুন করে কাজ শুরু করল  সংবহন তন্ত্র এবং পৌষ্টিক তন্ত্র। এর মধ্যে অন্যান্য বৈশিষ্ট্য খতিয়ে দেখে বিজ্ঞানসম্মত নামও ঠিক করে ফেলেছেন বিজ্ঞানীরা। বেলোয়েড রটিফার। প্রাগৈতিহাসিক এই প্রাণী সেইসময়ের জলবায়ু এবং বিবর্তনের ইতিহাস সম্বন্ধে অনেক তথ্যই জানাতে পারবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
ভারতের জীববৈচিত্র্য হটস্পটের ৯০ শতাংশই বিলুপ্ত, হারিয়েছে ২৫টি উদ্ভিদ প্রজাতিও

More From Author See More