কুকুর ছাড়া মানুষের প্রবেশ নিষেধ; বিস্ময়কর রিসর্ট আমেরিকার শহরে

পাহাড়ের চূড়ায় একটি রিসর্ট। ছুটি কাটাতে ভিড় করেন অনেক মানুষ। তবে শুধু মানুষ নয়। রিসর্টের নিয়ম হল, যাঁরা আসবেন তাঁদের সঙ্গে যেন অবশ্যই একটি পোষ্য কুকুর থাকে। আর সেই পোষ্যের খেলার জন্য আছে বিশেষ পার্ক, সাঁতার কাটার জন্য বিশেষ পুল। সব মিলিয়ে যেন কুকুরদের জন্যই তৈরি এই রিসর্ট। আজও যেখানে অনেক হোটেল এবং রিসর্টেই পোষ্য নিয়ে প্রবেশের অধিকার দেওয়া হয় না, সেখানে আমেরিকার সেন্ট জন্সবেরি শহরের ভেরমন্ট রিসর্ট সত্যিই এক বিস্ময়। এমনকি এই রিসর্টের জন্য ভেরমন্ট পাহাড়কেই অনেকে ‘ডগ মাউন্টেইন’ বলে ডাকেন।

১৯৯৫ সালে এই রিসর্টের পরিকল্পনা করেন স্টিফেন হিউনেক নামে এক শিল্পী। তাঁর নিজের মালিকানার মধ্যেই ছিল এই পাহাড়। ফলে চমৎকার একটি জায়গাও পাওয়া গেল। হিউনেক দম্পতি জোর কদমে কাজ শুরু করে দিলেন। তবে কিছুদিনের মধ্যেই তাঁদের দুজনেরই মৃত্যু হলে কাজ থমকে যায়। শেষ পর্যন্ত আত্মীয় এবং বন্ধুরা মিলে কাজ শেষ করলেন। আর ২০০০ সালে পথচলা শুরু করল এই অভিনব রিসর্ট। ২০ বছর ধরে সবসময় ভিড় লেগে থাকে সেখানে। এমনকি এই করোনা পরিস্থিতিতেও এই রিসর্ট বন্ধ হয়নি। শুধু কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

তবে যেসব পর্যটক এখানে ভিড় করেন, তাঁদের অন্যতম আকর্ষণ থাকে রিসর্টের বিখ্যাত চ্যাপেল। এখানে থরে থরে সাজানো মনিবকে ছেড়ে বিদায় নেওয়া অসংখ্য পোষ্যের ছবি, তাদের উদ্দেশ্যে লেখা কবিতা এবং স্মারকলিপি। সব মিলিয়ে যেন একটা নতুন ধরনের প্রদর্শনী। আর মানুষের পাশাপাশি সেখানে মুগ্ধ হয়ে বসে থাকে তাঁদের পোষ্যরাও। কুকুরের সঙ্গে মানুষের আত্মিক সম্পর্ককেই আরও বাস্তব রূপ দিতে এই পরিকল্পনা করছিলেন হিউনেক। তিনি না দেখে যেতে পারলেও, এই অবসাদগ্রস্ত পৃথিবীতে তাঁর ভাবনাই নতুন পথ দেখাচ্ছে।

Powered by Froala Editor

আরও পড়ুন
অসুস্থ মনিব ভর্তি হাসপাতালে, ফিরতেই ছুটে জড়িয়ে ধরল পোষ্য সারমেয়

More From Author See More

Latest News See More