রোজা ভেঙে রক্তদানে এগিয়ে এলেন যুবক, মানবতার আরও এক দৃশ্য কলকাতায়

থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত এক কিশোর। শরীরে রক্তের প্রয়োজন; কিন্তু এখন তো চারিদিকে করোনার পরিস্থিতি। কোনো রক্তদান শিবির নেই, ব্লাডব্যাঙ্কও খালি হচ্ছে ক্রমশ। কিন্তু ছেলেটিকে তো বাঁচাতে হবে! সেই আবেদনেই সাড়া দিলেন শেখ সাইদুল। রোজা ভেঙে এক ছুটে চলে গেলেন রক্ত দিতে। মানুষকে বাঁচানোই যে সবার আগে দরকার!

বারুইপুরের সুনীত মণ্ডলের জন্মের কয়েক মাস পরেই থ্যালাসেমিয়া ধরা পড়ে। নিয়মিত রক্ত নেওয়ার প্রয়োজন তার। কিন্তু বাড়ির অবস্থা তো ভালো নয়। সুনীতের বাবা পেশায় ভ্যানচালক। এত বার রক্ত নিয়ে দেওয়াটাও সম্ভব হচ্ছে না পরিবারের পক্ষ থেকে। ভরসা বলতে রক্তদান শিবিরই। সেভাবেই চলছিল। কিন্তু লকডাউন ও করোনার এই পরিস্থিতিতে সেটাও বন্ধ হয়ে যায়। ব্লাড ব্যাঙ্কেও জোগান তলানিতে। কী করবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না বছর তেরোর সুনীত মণ্ডলের পরিবার।

এমন সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি গ্রুপের দ্বারস্থ হন সুনীতের বাবা। সেখান থেকেও একই ব্লাড গ্রুপের রক্তদাতার খোঁজ করা হয়। তখনই এগিয়ে আসেন শেখ সাইদুল। রক্তের গ্রুপও মিলে যায়। আর দেরি করেননি তিনি। কলকাতার বেসরকারি একটি হাসপাতালে গিয়ে রক্ত দান করে আসেন সাইদুল। রোজা, ধর্ম— সবকিছু পাশে সরিয়ে রেখে এগিয়ে এসেছিলেন। একটি কিশোরের জীবন বাঁচানো অনেক গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছিল তাঁর কাছে। এভাবেই বারবার মানবতা জিতে যায়। সুনীতও সুস্থ হয়ে উঠুক; আর সাইদুলের মতো মানুষরা আমাদের চারপাশটাকে সুস্থ সুন্দর করে রাখুক। এটাই কামনা…

More From Author See More

Latest News See More