মুলারের উপস্থিতির জন্য প্রেস কনফারেন্স ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন মারাদোনা!

এক দশক আগের কথা। জার্মানির জাতীয় ফুটবল দলে প্রথমবারের জন্য খেলার সুযোগ এসেছে তাঁর কাছে। বিপক্ষ আর্জেন্টিনা। সে-দলের কোচ ‘গ্রেটেস্ট অফ দ্য অল টাইম’ মারাদোনা। থমাস মুলার। মারাদোনার সঙ্গে সেই তাঁর প্রথম সাক্ষাৎ। তবে সেদিনের সেই প্রেস কনফারেন্সের পরিবেশ অস্বস্তিপূর্ণ হয়ে উঠেছিল এই দুই তারকার উপস্থিতিতেই।

সেদিন মারাদোনা আকপট জানান, একুশ বর্ষীয় মুলারের শারীরিক গঠন দেখে খেলোয়াড় বলে মনেই হয় না তাঁকে। প্রেস কনফারেন্সে এমন একজনের সঙ্গে মঞ্চ ভাগ করে নিতে যথেষ্ট আপত্তি জানান তিনি। এমনকি মুলারের উপস্থিতির কারণেই মঞ্চ ছেড়ে চলে যান মারাদোনা। যদিও অনুরোধে ফিরে এসেছিলেন তিনি কিছুক্ষণ বাদেই। ক্ষমা চেয়েছিলেন তাঁর এই ধরনের ব্যবহারের জন্য। ঘটনার ব্যাখ্যা চাইলে মারাদোনা বলেন, এই ধরণের প্রেস কনফারেন্স শুধু কোচেদের জন্য। সেখানে খেলোয়াড়দের অনুপস্থিতিই কাম্য।

সেদিনের সেই ম্যাচে শেষ হাসি হেসেছিল আর্জেন্টিনাই। তবে জবাব দিতে মুখিয়ে ছিলেন মুলারও। অপেক্ষা করতে হয়েছিল আরও তিন মাস। ২০১০ বিশ্বকাপের মঞ্চে মারাদোনার নীল-সাদা ব্রিগেডের বিরুদ্ধে জার্মানির ৪-০ গোলের বড় জয়ের নেপথ্যেও ছিল মুলারেরই ভূমিকা। মাত্র তিন মিনিটের মাথাতেই লিড এনে দিয়েছিল মুলারের ভলি। টুর্নামেন্টের সেরা তরুণ খেলোয়াড় হিসাবেও স্বীকৃতি উঠেছিল মুলারের মুকুটেই। 

উল্লেখ্য, আর্জেন্টিনার কোচ হিসাবে মারাদোনার শেষ ম্যাচই ছিল সেটা। সম্প্রতি মারাদোনার প্রয়াণের পর স্মৃতিচারণায় সেই কথাই তুলে আনেন জার্মান তারকা থমাস মুলার। তবে সেদিনের সেই ভুল বোঝাবুঝিকে হালকা মেজাজেই নিয়েছিলেন মুলার। তারপরেও মারাদোনার অটুট ছিল মুলারের শ্রদ্ধা। ফুটবলের ইতিহাসে মারাদোনার অবদান অস্বীকার করার জায়গা নেই বলেই জানান জার্মান তারকা। প্রথম সাক্ষাতের সেই অস্বস্তিকর মুহূর্তকে এত বছর পেরিয়ে এসে স্রেফ ‘মজার’ বলেই অভিহিত করেন তিনি...

Powered by Froala Editor

More From Author See More

Latest News See More